«

»

shourovekhan23

যে সব used পন্ন কিনতে মানা

অনেকেই পুরোনো ও ব্যবহূত পণ্য কিনতে পছন্দ করেন। দামে কিছুটা সাশ্রয়ী হওয়ার কারণে হয়তো অন্যের ব্যবহূত পণ্যের ওপর আগ্রহ তৈরি হতে পারে। কিন্তু অন্যের ব্যবহূত পুরোনো জিনিস কেনার আগে সে পণ্যের গুণমান ও ঝুঁকির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
কেনায় অতিরিক্ত ঝুঁকি রয়েছে, এমন সব পুরোনো পণ্য-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ইয়াহু ফাইন্যান্স। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে—পুরোনো ও ব্যবহূত এমন প্রযুক্তিপণ্যের তালিকায় রয়েছে ল্যাপটপ, ভিডিও ক্যামেরা, প্লাজমা ও এইচডি টিভি, সফটওয়্যার, ডিভিডি প্লেয়ার ও ব্লেন্ডার।
যত্ন সহকারে ল্যাপটপ ব্যবহার করা হলে কয়েক বছর বেশ ভালো কাজ করে ল্যাপটপ। কিন্তু পুরোনো ও অন্যের ব্যবহূত ল্যাপটপ সম্পর্কে ধারণাটি (কি কাজে ব্যবহার করা হত বা ল্যাপটপ ব্যবহারের ধরন) অজানাই থেকে যায়। এটা পড়ে গিয়ে কখনও নষ্ট হয়েছিল কি না বা কোনো তরল পদার্থের সংস্পর্শে এসেছিল কি না, এ বিষয়েও সঠিক কোনো তথ্য বিক্রেতার কাছ থেকে পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। কেনার সময় ত্রুটি চোখে না পড়লেও বাড়িতে নিয়ে ব্যবহার করার সময় ত্রুটি দেখা দিতে পারে।
অনেক সময় দেখা যায়, জরুরি ভিত্তিতে ল্যাপটপের কোনো হার্ডওয়্যার পরিবর্তন করার প্রয়োজন পড়েছে। পুরোনো পণ্যের সঙ্গে নতুন হার্ডওয়্যার যুক্ত করার যে খরচ, তা অনেক সময় নতুন ল্যাপটপের দামও ছাড়িয়ে যায়।
ঠিক একই কথা ভিডিও ক্যামেরার ক্ষেত্রেও খাটে। ব্যবহূত ও পুরোনো ভিডিও ক্যামেরায় বাইরে থেকে কোনো ত্রুটি চোখে পড়তে নাও পারে। কিন্তু বিক্রেতার কাছ থেকে এটি কখনো পড়ে গিয়ে বা পানির সংস্পর্শে আসতে পারে। এ তথ্য কিন্তু সচরাচর বিক্রেতা প্রকাশ করেন না। তাই কেনার পর সারানোর প্রয়োজন পড়লে ক্ষেত্রবিশেষে তা নতুন দামকেও ছাড়িয়ে যায়। তাই পুরোনো আর ব্যবহূত ভিডিও ক্যামেরা না কেনাই ভালো।
সাম্প্রতিক প্লাজমা ও এইচডি টিভির ক্ষেত্রেও যদি তা ব্যবহূত বা পুরোনো পণ্য হয়, তবে তা না কেনাই যুক্তিসংগত। কারণ, এ ধরনের টেলিভিশন নষ্ট হলে বা ত্রুটি দেখা দিলে সারাতে যে খরচ পড়ে, তাতে পরে এ নিয়ে আফসোস হতে পারে। এর চেয়ে সাশ্রয়ী দামে ওয়ারেন্টিযুক্ত নতুন টেলিভিশন কেনার পরামর্শই দেন বিশেষজ্ঞরা।
সফটওয়্যারের ক্ষেত্রে একটি ‘প্রোডাক্ট কোড’ থাকে। অধিকাংশ সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান সফটওয়্যার রিলোডের ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট সংখ্যা নির্ধারণ করে দেয়। যদি পুরোনো ও ব্যবহূত সফটওয়্যার কেনা হয়, তখন এই পণ্যটি কতবার ব্যবহার করা হয়েছে, সে তথ্যটি জানা সম্ভব হয় না বা বিক্রেতাও এর সঠিক তথ্যটি জানান না। তাই সফটওয়্যার কেনার ক্ষেত্রেও পুরোনো ও ব্যবহূত সফটওয়্যার এড়িয়ে যাওয়া উচিত।
ডিভিডি প্লেয়ার সারার চেয়ে নতুন কিনে ফেলাই ভালো। কারণ একবার তা নষ্ট হলে এটি সারানোর ঝক্কি-ঝামেলা অনেক। অধিকাংশ সময় দেখা যায়, পুরোনো ডিভিডি প্লেয়ার কেনার পর নষ্ট হলে তা সারাই করার প্রয়োজন পড়ে আর সারাইখানায় একবার গেলেই নতুন ডিভিডি ট্রে কেনার জন্য বলা হয়। সারানোর খরচ, নতুন যন্ত্রাংশ কেনা—সব মিলিয়ে ব্যয় যা দাঁড়ায়, তাতে নতুন কিনে ফেলাটাই যুক্তিসংগত। ব্লেন্ডারের ব্লেড নষ্ট থাকতে পারে। সবকিছু খুঁটিয়ে দেখে কেনার পরও দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে পারে পুরোনো ও ব্যবহূত ব্লেন্ডার। তাই এ ধরনের পণ্যের ক্ষেত্রেও কখনো পুরোনো ও ব্যবহূত পণ্য কেনা উচিত নয়।


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

মজিলা ফায়ার ফক্স এর কিছু সর্টকার্ট কমান্ড.........
১০০% নির্ভর যোগ্য একটি সাইট !!With payment Proof
অনলাইন মুভি ডাউনলোড লিঙ্ক কিংবা জনপ্রিয় ফিল্মস সাইটের আপডেট পেতে চান?
ইন্টারনেটের অপ-ব্যবহার ও পর্নো সাইট নিয়ন্ত্রণ করুন ৪৯.৯৫ ডলার মূল্যর সফটওয়্যার
mCent এপ দিয়ে আপনার ফোনে ফ্রিতে রিচার্জ করুন, ১০০% ওয়ার্কিং
এবারই হয়ত আপনার জীবন পরিবর্তনের শেষ সুযোগ জি হ্যা অনলাইনে ইনকাম করা শিখুন সেরাদের কাছ থেকে
বাংলালিংকে বিকাশের মাধ্যমে রিচার্জে ১০০% বোনাস অফার

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

shourovekhan23

shourovekhan23

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/tips-tricks/shourovekhan23/28912

মন্তব্য করুন