«

»

গুগল দিয়ে বাৎসরিক ৪ থেকে ৮ লাখ টাকার সমপরিমাণ বিট কয়েন মাইনিং সম্বব

হ্যালো ! সবাই কে নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। কেমন আছেন সবাই! আজ শুধু শুভেচ্ছা নয় সেই সাথে আপনাদের কে একটা উপহারও দিতে চাই যাতে সবাই আগামী নববর্ষটি পরিবার ও পরিজন নিয়ে আরো অনেক ভালো ভাবে কাটাতে পারেন।

উপহার দেওয়ার আগে আমি আমার পরিচয়টা দিয়ে নেই। পেশায় আমি একজন স্থপতি। মানে রাজমিস্ত্রি। নির্মাণ কাজের সাথে সম্পৃক্ত আছি প্রায় দশবছর। এর বাইরে মাঝে মাঝে কিছু ওয়েব ডিজাইন ও ই-কমার্স এর কাজ করি নিতান্তই ঐচ্ছিক ভাবে এবং সেটা ওয়ার্ডপ্রেস এর ফ্রী থিম ব্যবহার করে যাতে নতুন যারা উদ্যোক্তা আছেন তারা যেন নিতান্তই অল্প টাকায় তাদের ব্যবসাটা শুরু করতে পারেন কোন বাড়তি চাপ ছাড়াই। এর বাইরে মাঝে মাঝে সময় পেলে কিছু ব্লগিং করি তাদের জন্য যারা অবসরে অনলাইনে বাড়তি কিছু আয় করতে পারেন কোন রকম কোন ইনভেস্টমেন্ট বা ঝামেলা না করেই।

আসুন এবার জেনে নেই কি সেই উপহার যা আমি আপনাদের এই নববর্ষে দিতে চাই। আপনারা অনেকেই হয়তো বিটকয়েন এর নাম শুনেছেন কিংবা শুনে থাকবেন। আজকেই এই নববর্ষের দিনে এক বিটকয়েন এর বিনিময় মূল্য ৮১৩৪ ডলার যা টাকায় হিসেব করলে দাঁড়াবে প্রায় ৬৭৫২৯১ টাকার সমপরিমাণ। তাহলে এবার জেনে নেই কিভাবে আমরা এই কয়েন পেতে পারি! অনেক ভাবেই আমরা এই বিটকয়েন পেতে পারি যেমন কোন কাজের বিনিময়ে অথবা মাইনিং করে। যারা আউটসোর্সিং কাজ করেন তাদের জন্য এই কয়েন পাওয়া অনেক সহজ। কিন্তু যারা জানেন না তাদের জন্য কি উপায় আছে! আছে এবং সেটা হলো এই কয়েন মাইনিং করে তারাও পেতে পারেন এই মূল্যবান কয়েন যারা আউটসোর্সিং কাজ জানেন না। কিন্তু সমস্যা হলো এই কয়েন মাইনিং করার জন্য শক্তিশালী হার্ডওয়ার দরকার হয় যা আমাদের মতো সাধারন ব্যবহারকারীদের অনেকের নেই বললেই চলে। তাহলে উপায় কি এই মূল্যবান কয়েন মাইনিং করার! আসলেই কি কোন উপায় আছে!

এই নববর্ষে আমি কাউকে হতাশ না করেই বলতে চাই যে অবশ্যই অনেক সহজ একটি উপায় আছে। আর সেটা তাদের জন্যই যারা আমার মতো সাধারন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী এবং নিয়মিত ইন্টারনেট ব্রাউজ করেন।

আসুন এবার জেনে নেই কি এই পদ্ধতি এবং কারা এই পদ্ধতি ব্যবহার করে কিভাবে কত কয়েন মানে কত টাকা মাইনিং করে আয় করতে পারবেন। যারা নিয়মিত ২ থেকে তিন ঘণ্টা ইন্টারনেট ব্রাউজ করেন তারা ছয় থেকে একবছরে এক বিটকয়েন আয় করতে পারবেন এবং যারা একটু বেশি মানে ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা ব্যবহার করে তারা তিন থেকে ছয় মাসে এক বিট কয়েন মানে প্রায় ৬০০০০০ টাকা আয় করতে পারবেন। আর যেহেতু আপনাকে কিছু করতে হচ্ছে না শুধু মাত্র ১০ মিনিট এর সেটআপ ছাড়া সেহেতু বলতে সমস্যা নেই এটি অনেক ধীর গতির একটি মাইনিং পদ্ধতি। সুতরাং যারা তাড়াহুড়ো করতে চান তাদের জন্য আমার কাছে সহজ কোন রাস্তা নেই বললেই চলে। আমার জানা মতে অনলাইনে যে কোন আয়ের জন্য আপনাকে একটু সময় দিতেই হবে এবং যারা রাতারাতি আয়ের কথা বলবে ধরে নিতে পারেন তারা আপনাকে সঠিক তথ্যটি দিচ্ছে না।

এবার জেনে নেই কিভাবে আপনি এই মাইনিং করবেন এবং আপনার কি কি দরকার হবে। মাইনিং এর জন্য আপনার দরকার google chrome ব্রাউজার। আপনার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটারে যদি google chrome download করা না থাকে তবে প্রথমে তা Download করে নিন এই লিংক থেকে https://www.google.com/chrome/

ইন্সটল ও সেটআপ হয়ে গেলে ব্রাউজার ওপেন করুন এবং আপনার জি মেইলে লগইন করে নিন। এবার এই লিংকটি https://getcryptotab.com/467076 আপনার ব্রাউজারে ওপেন করুন। ওপেন হলে ওই পেইজ হতে ADD TO CHROME AND GET BITCOIN এ ক্লিক করুন। ক্লিক করলে এবার আপনার ব্রাউজারে একটি এক্সটেনশন Download হবে।

এবার গুগল আপনাকে একটি ম্যাসেজ দেখাবে এবং আপনি ম্যাসেজ থেকে add Extension এ ক্লিক করুন। ব্যাস আপনার কাজ শেষ।

আপনার আয় টি যাতে আপনারই থাকে সেজন্য ডানপাশে উপরের অপশন এ গিয়ে (লাল চিহ্নিত) আপনার Gmail অথবা facebook দিয়ে লগ ইন করে নিন।

আমি আগেই বলেছি ১ বিটকয়েন মাইনিং হতে কম করে হলেও তিন মাস লাগবে এবং এটা নির্ভর করবে আপনার মেশিন এর উপর। মানে আপনি কত সময় আপনার ব্রাউজার ওপেন করছেন তার উপর।

এবার জেনে নিন কিভাবে আপনি আপনার আয় করা টাকা তুলবেন-

আপনাকে আগেই বলেছি অনলাইনে আয় হবে ধীরে ধীরে। সুতরাং টাকা জমতে একটু সময় লাগবে এবং আপনি আপনার আয় ডলারে তুলতে পারবেন। আপনার আয়ের পরিমান এক সেন্ট হলেই আপনি পে আউট করতে পারবেন। তবে আমার মতামত হলো টাকা ট্রান্সফার করতে যেহেতু ফি এর একটি বিষয় থাকে তাই টাকার পরিমান টা একটু বেশি হলেই পে আউট করাটা ভালো।

আপনার টাকা তুলার জন্য আপনার একটি Wallet দরকার হবে যা আপনি ফ্রী বানাতে পারবেন এবং এই লিংক থেকে আপনি আমার নিজস্ব Wallet টি দেখতে পারবেন এবং আপনার জন্য একটি ফ্রী Wallet বানাতে পারবেন https://sannyasi.bitcoinwallet.com/

আর একটি বিষয়- যেহেতু টাকাটা আয় করতে আপনার কোন কিছু করতে হচ্ছে না এবং আপনি আপনার গুগল ব্রাউজার দিয়ে সহজেই অন্য যে কোন কাজ করতে পারছেন তাহলে বিষয়টি আপনি আপনার পরিচিত যে কাউকে কেন রেফার করবেন না! অবশ্যই করা উচিত এবং আপনি যাদের কে রেফার করবেন এবং তারাও যদি কাউকে রেফার করে তবে সবার কাছে থেকেই আপনি তাদের আয়ের ১৫% কমিশন পাবেন।

আরো একটি কথা। পুরো বিষয়টি ফেক হবার কোন কারণ নেই। কেননা গুগল তাদের Store এ যেহেতু Extention টি দিয়েছে এবং প্রায় হাজারেরও বেশি রিভিউ আছে সেহেতু আপনি আস্থা রাখতে পারেন এবং আমি নিজেও দুইবার পে আউট করেছি বিষয়টি সত্য কিনা সেটা জানবার জন্য এবং আমি সফল হয়েছি- যদিও পরিমান টা অনেক অল্প ছিলো। কিন্তু মনে করতে কোন সমস্যা নেই যে বিন্দু বিন্দু জল দিয়েই সিন্ধু হবে একদিন এবং আগামী নববর্ষে অবশ্যই আপনি ভালো পরিমান একটি টাকা তুলতে পারবেন বলে শুধু আশাই করছি না বরং আমি এই বিষয়ে আপনাকে নিশ্চয়তাও দিচ্ছি।

শুভ নববর্ষ।

আমার টিউন গুলো ভালো লাগলে অবশ্যই আমার টিউন বেশি বেশি জোসস করুন

আমার টিউন গুলো আপনার ‘টিউন স্ক্রিন’ নিয়মিত পেতে অবশ্যই আমাকে ফলো করুন। আমার টিউন গুলো সবার কাছে ছড়িতে দিতে অবশ্যই আমরা টিউন গুলো বিভিন্ন সৌশল মিডিয়াতে বেশি বেশি শেয়ার করুন

আমরা টিউন সম্পর্কে আপনার যে কোন মতামত ও আলোচনা করতে অবশ্যই আমার টিউনে টিউমেন্ট করুন

আমার সাথে সরাসরি যোগাযোগ করার জন্য টেকটিউনস


মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

sannyasi

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/tips-tricks/sannyasi/80397

মন্তব্য করুন