«

»

ফ্রিল্যান্সিং করতে চান?….. যে ভাবে শুরু করবেন!

কয়েকটি ছোট খাট প্রশ্নের উত্তর নিয়ে আমার এই পোস্ট। যে কয়েকটি প্রশ্ন ফ্রীল্যান্সিং শুরুর আগে যে কারো মনে উদয় হয়। দেখি আমি কি কি বিষয় লিখতে পারি এখানে। তবে একটি লিস্ট করে ফেলি তার আগে। সত্যি বলতে কি, আমি আমার ফ্রীল্যান্সিং নিয়ে দুটি পোস্ট করার পর এ প্রশ্ন গুলোর সম্মুক্ষীন হয়েছি। তার থেকে চিন্তা আসল সব গুলো প্রশ্ন এক করে একটা পোস্ট করার, যেন যারা আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারে না তারাও উপকৃত হয়। তার পর একটা একটা করে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করবঃ

  • ফ্রীল্যান্সিং কেন করব।
  • ফ্রীল্যান্সিং সাইট গুলোতে কি কি কাজ করা যায়?
  • আমি কোন কাজ পারি না, আমি কিভাবে ফ্রীল্যান্সিং করব?
  • ফ্রীল্যান্সিং নিয়ে আমার কোন আইডিয়া নেই। আমি কি করব?
  • আমার কি কি শিখা উচিত?
  • আমি কোন সাইটে কাজ করা শুরু করব?
  • আমি কিভাবে ফ্রীল্যান্সিং শুরু করব।
  • আমি মোটামুটি কাজ পারি, কিন্তু কি করব বুঝতে পারছি না,।।
  • আমি কাজ পারি, বিড করে যাচ্ছি কিন্তু কাজ পাচ্ছি না।
  • টাকা কিভাবে পাবো?
  • টাকা কি সত্যিই পাবো?
  • টাকা কিভাবে খরচ করব 😛
>>>>>>ফ্রীল্যান্সিং কেন করবেন, তার উত্তর পাবেন আমার আগের লেখা দুটি পোস্টে। আমি এখানে লিঙ্ক দিয়েছি, আপনি যদি আগে পড়ে না থাকেন প্লিজ আগে পড়ে তার পর নিচের লেখা গুলো পড়বেন।

 এবার লিখব ফ্রীল্যান্সিং সাইট গুলোতে কি কি কাজ করা যায় তা নিয়ে।

একদম সহজ থেকে শুরু করি, আপনি যা জানেন তা দিয়েই কাজ শুরু করতে পারবেন। নিচে ওডেস্কে কি কি জব পাওয়া যায় তার একটা স্কিনসর্ট। ছবির উপর ক্লিক করলে বড় করে দেখা যাবে। 

odesk jobs

এখানে ইল্যান্সে কি কি জব পাওয়া যায় তার একটা স্কিনসর্টঃ

Browse Jobs   Elance

এগুলো দেখে একটা ধারনা নেওয়া যাবে অনলাইনে কি কি কাজ পাওয়া যায়, কি ধরনের কাজ পাওয়া যায়। আপনি যদি উপরের যে কোন একটি কাজও পারেন, তাহলে আপনি অনলাইনে কাজ করতে পারবেন। যদিও এ গুলো ছাড়াও আরো অনেক ধরনের কাজ অনলাইনে রয়েছে। আপনাকে তা খুজে নিতে হবে। আপনি যদি এ কাজ গুলোর একটিও ভালো মত না পারেন, তাহলে আপনার কাছে যে কাজটা ভালো লাগে এমন একটা কাজ শিখে নিতে পারেন। তারপর আপনি কাজ শুরু করতে পারেন। কাজ শিখে নিতে বেশি সময় লাগবে না। ভয় ফেলে বা শুরু না করলে কিভাবে শিখবেন? আজকের দিনটি  আপনার প্রিয় বিষয়টি শেখা শুরু করার জন্য কি একটি ভালো দিন নয়?

একটা কথা কি, মানুষ যা নিয়ে ঘটাঘাটি করে সে দিকেই এক্সপার্ট হয়। কেউ প্রথম দিন ই সফল হয় না। আপনি যদি আজ থেকেই ফ্রীল্যান্সিং শুরু করেন তাহলে আজই না হোক কাল বা এক মাস পর অথবা এক বছর পর এক জন সফল ফ্রীল্যান্সার হতে পারবেন। আর আপনি যদি ফ্রীল্যান্সিং করতে গিয়ে ধোঁকা খান তাহলে আগামি কাল আপনি ঐসব দিক এড়িয়ে ভালো দিকে যেতে পারবেন। আপনি যদি প্রথা গত চাকরি করতে না চান, তাহলে আজ থেকেই ফ্রীল্যান্সিং সম্পর্কে জানা শুরু করুন। এখানে কাজের অভাব নেই। বিষয়ের ও অভাব নেই। আপনি সহযেই আপনার পছন্দের বিষয় নির্বাচন করে সামনে এগুতে পারবেন। অথবা একটা বিষয় নির্বাচন করলেন। তার পর দেখলেন আপনার ভালো লাগে না, আপনি সহজেই অন্য বিষয়ে পরিবর্তন করতে পারবেন। তবে একটা বিষয় কে নির্বাচিত করে সামনে এগুনো ভালো। একটা বিষয় নিয়ে যে যত ঘাটবে সে তত ঐ বিষয় নিয়ে দক্ষ হতে পারবে। সংক্ষেপে বলতে গেলে, আপনি যদি গ্রাফিক্সের কাজ যেনে থাকেন তাহলে চেষ্টা করবেন সব সময় গ্রাফিক্সের কাজ করার জন্য। দক্ষ মানুষের স্থান সব সময়েই উপরের দিকে, এবার তা যে বিষয়েই হোক না কেন। আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে এক জন ফ্রীল্যান্সারকে এক সাথে অনেক কিছুর কাজ করতে হয়। সাজতে হয় ওয়ান ম্যান আর্মি। যাই করুন না কেন, আপনার লক্ষ্য কিন্তু স্থির রাখতে হবে।
আপনি যদি কিছু কাজ জানেন, তাহলে নিচের যেকোন একটি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলে কাজ করার জন্য বিড করতে থাকুন। যে কাজটি পারবেন বলে মনে হয় তাতে বিড করুন। ক্লায়েন্টকে সুন্দর একটা মেসেজ দিন। কাজ পেতে বেশি সময় লাগবে না। আমি এখানে কিছু মার্কেটপ্লেসের লিঙ্ক দিচ্ছি। এর বাহিরে আরো অনেক গুলো মার্কেটপ্লেস রয়েছে।

অনেকেই ফটোশফ পারেন, তাদের জন্যঃ

আপনার ফটোগ্রাফি দিয়েও ভালো একটা ইনকাম করতে পারেন। আপনি কি ছবি বিক্রি করার কোন সাইটে ছবি আপলোড করছেন?
আর আপনার গ্রাফিক্স আইডিয়াও ভালো। তাই ওডেস্ক অথবা 99Designer / Elance / oDesk এ একাউন্ট খুলে ঐ খানে গ্রাফিক্সের কাজ করতে পারেন। ভালো করবেন।। ফটোশপের কাজের অভাব নেই। ওডেস্কে একাউন্ট থাকলে বিড করুন। আর না থাকলে একটা খুলে নিন। যদি হেল্প এর দরকার হয় আমি যতটূকু পারি সাহায্য করব।  Good Luck

ট্রিক্স গুলোঃঃ

কাজের জন্য বিড করুন, নিয়মিত করবেন। একটা না একটা এপলিকেশনের রিপ্লাই পাবেনই। তখন স্মার্ট হয়ে কথা বলার চেষ্টা করবেন। যদি দেখেন আপনি স্মার্ট ভাবে কথা বললেও কাজে পেতে সমস্যা, তাহলে আপনার কথার মধ্যে বিনয়ী ভাব আছে কিনা তা দেখবেন।
যে কাজ আপনি ১০০% পারবেন বলে মনে করেন তা কম টাকায় করে দেওয়ার অফার করবেন। প্রথম প্রথম দুই একটা কাজের জন্য যত ইচ্ছে খাটুন। দেখবেন কোনএকদিন আপনার এ খাটার কষ্ট উঠে আসবে। একটা প্রবাদঃ “Wounded Mind most powerful then normal”
স্টিব জবসের “Stay Hungry, Stay foolish” এটা মনের মধ্যে গেথে ফেলুন। ক্ষুধা কিন্তু দুই ধরনের হয়, পেটের ক্ষুধা আর মনের ক্ষুধা। আপনার মনের ক্ষুধাকি জ্ঞানের? জ্ঞানের ক্ষুধা ছাড়া অন্য গুলো কিন্তু কাজে দিবে না। শেখার চেষ্টা করুন। আপনার জীবনের কষ্ট গুলো থেকেও। পেটের ক্ষুধাও কিন্তু কাজে দেয়। যখন আপনার পেটে খাবার বেশি থাকবে মস্তিস্ক তখন কম কাজ করে। কারন হচ্ছে খাওয়া বেশি খেলে পেটের ঐ খাবার গুলো হজম করার জন্য বেশি পরিমান রক্ত সঞ্চালন দরকার পড়ে, আর তাই মস্তিস্কে রক্তের ঘাটতি পড়ে। আর তাই তখন কিন্তু ভালো চিন্তা করা যায় না, প্রায় সময়ই দেখবেন খাবার পর ঘুম ঘুম ভাব হয়। আর পেট খালি থাকলে চিন্তা শক্তি সার্ফ হয়। তাই বলে আমি আপনাকে না খেয়ে থাকতে বলছি না। প্রয়োজনের থেকে একটু বেশি খাবেন না। [ আমি নিজে কিন্তু ভোজন বিলাসী 🙂 ]
আপনি যদি নিয়মিত বিড করে থাকেন, তারপর ও কোন কাজ না পান তাহলে আপনার কভার লেটার টা একটু অন্যরকম ভাবে লেখার চেষ্টা করুন। ক্লায়নেটের জাগায় আপনাকে চিন্তা করুন। কিভাবে একজন এপ্লাই করলে আপনি তাকে হারায় করতেন। আশাকরি কাজ হবে।  প্রথম প্রথম প্রয়োজনে দুই তিনটা মার্কেটপ্লেসে এক সাথে কাজের জন্য এপ্লাই করুন। সবাই চায় অভিজ্ঞতা।
কাজ না করলে অভিজ্ঞতা কিভাবে হবে তাই না? যদি প্রথমে কেউই কাজ দিতে না চায়, তাহলে ফ্রী কাজ করার চেষ্টা করুন। নিচের লেখাটা দয়া করে পড়ুন।
আশা করি আপনি কাজ পাবেন। যদি কাজ না পান, তাহলে হতাশ হবে না। নতুন কিছু শেখার চেষ্টা করুন নিয়মিত। কাজ পান নাই বলে বসে থাকার কোন মানে হয় না। আর কাজ পেলে কাজ কমপ্লিট করার পর আপনার একাউন্টে টাকা জমা হবে। সেখান থেকে আপনি ব্যাঙ্কে ট্রন্সফার করতে পারবেন। ওডেস্ক, ইল্যান্স ইত্যাদি ব্যাঙ্ক সাফোর্ট করে। অন্যান্য মার্কেটপ্লেস থেকে আপনি মানিবুকার্স বা এমন কোন সিস্টেমে টাকা আনতে পারবেন। টাকা রুজি করলে দেখবে হাতে আসার অনেক গুলো পথ পেয়ে যাবেন। কিভাবে টাকা হাতে পাবেন, সে চিন্তা আপাতত না করলেও হবে।
ধরে নিচ্ছি আপনি অনেক কিছু শিখছেন, তারপর কাজ শুরু করেছেন, অনেক টাকা রুজি করছেন, এবার তো খরচ করার সময় হয়েছে তাই না? কিভাবে খরচ করবেন তা বলে দিচ্ছি। একটা পার্টির ব্যবস্থা করুন। তারপর আমাকে দাওয়াত দেন 😛 এক সাথে আপনার টাকা গুলো খরচ করব।
দোয়া করি আপনার ফ্রীল্যান্সিং জীবন অনেক সুন্দর হোক।

এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

ক্যারিয়ার হিসেবে এন্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপমেন্ট
টাকা উপার্জন করুন আপনার সোসাল মিডিয়া এক্যাউন্ট গুলো থেকে । যেমনঃ ফেসবুক, টুইটার এবং গুগোল প্লাস থেকে
ব্লগকে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং কাজে লাগানো যায় সে সম্পর্কে তথ্য
পিটিসি সাইটে কাজ করে আয়ের আশা, অতঃপর চুল ছেড়া ছিড়ি, চলুন দেখি এবং প্রথম থেকে শুরু করে দেখি, এবার টাক...
Neobux Referrals + Money Adder Hack 10$ 500$
এসে গেল নতুন trafficmonsoon।[না দেখলে ১০০০% মিস]
ফ্রীতে bitcoin ইনকাম করুন প্রতিদিন 2000 থেকে 10,000+ সাতশি. 5th পেমেন্ট প্রুফ দেখেনিন.

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

জাকির হোসাইন

প্রোগ্রামিং বা ফ্রীল্যান্সিং নিয়ে কোন প্রশ্ন থাকলে টেকটুইটস সাহায্য বিভাগে পোস্ট দিতে পারেন অথবা আমাকে ফেসবুকে মেসেজ দিতে পারেন।

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/selected/jakirbdl/41076

মন্তব্য করুন