«

»

কম্পিউটারের প্রথম প্রজন্মের কিছু কম্পিউটার অবস্থা দেখুন

আসসালামু আলাইকুম, আবারও অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে আজকের টুইট শুরু করছি। এটি আমার ২য় টুইট। আমার আগের টুইট ছিল “কম্পিউটারের ইতিহাস” সম্পর্কে। কম্পিউটারের ইতিহাস সম্পর্কে আশা করি কিছুটা হলেও সবাইকে জানাতে পেরেছি। আমি কম্পিউটার এলাকায় নতুন। তাই ভুল হলে ক্ষমা করে দিবেন। আজকের টুইটটি হল কম্পিউটারে প্রথম প্রজন্মের কম্পিউটার সম্পর্কে। দেখুন ভাল রাগলে রিভিউ দিবেন।

মার্ক-১ কম্পিউটার (Mark-1 Computer)

পৃথিবীর প্রথম কম্পিউটার হচ্ছে মার্ক-১ এটি যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিতের অধ্যাপক হাওয়ার্ড এইচ. আইকেন,  IBM এর চারজন প্রকোশলীর সহযোগিতায় তৈরি করেন প্রথম স্বয়ংক্রিয় সাধারণ ইলেকট্রোমেকানিক্যাল ডিজিটাল কম্পিউটার Mark-1, ১৯৪৪ সালে। তাদের এই গবেষণা চলে ১৯৩৭ থেকে ১৯৪৪ সাল পর্যন্ত। এটি ছিল ইলেকট্রো ম্যাকনিক্যাল যন্ত্র। এর আয়তনের হিসেবে এটি ছিল লম্বায় প্রায় ৫১ ফুট, উচ্চতায় ছিল ৪৮ ফুট, ওজন ছিল প্রায় ৫ টন। এই কম্পিউটারে প্রায় ৩ হাজার ইলেকট্রিক সুইচ ব্যবহার করা হয়েছিল। এতে প্রায় ৭ লক্ষাধিক যন্ত্রপাতির জন্য প্রায় ৫০০ মাইল তার ব্যবহার হয়েছিল। এর জীবন কাল ছিল প্রায় ১৫ বছর। মার্ক-১ এ গণিতের পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা যেত। এগুলো হল- যোগ, বিয়োগ, গুণ, ভাগ ও টেবিল বা সারণী সংশ্লিষ্ট (Table Reference) । মার্ক-১ দ্বারা দুটি সংখ্যার যোগ ও গুণ করতে সময় লাগত যথাক্রমে ০.৩ ও ৪.৫ সেকেন্ড সময় লাগত। বর্তমানে এটি হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান জাদুঘরে আছে।

ছবিঃMark-1 Computer

এ.বি.সি. কম্পিউটার (The ABC Computer)

ABC Computer নামটি শুনতে কেমন কেমন লাগে তাই না! ABC Computer এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Atanasoft Berry Computer. এটি যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া স্টেট কলেজের অধ্যাপক জন এটানাসফ (John Atanasoft) এবং তার ছাত্র ক্লিফ বেরি (Cliff Berry) যৌখভাবে অ্যাকুয়াস টিউব ব্যবহার করে তৈরি করেন একটি ইলেকট্রিক গণনাকারী যন্ত্র। তারা এই গণনাকারী যন্ত্রের নাম দিলেন ABC Computer. তাদের নাম অনুসারেই এই গণনাকারী যন্ত্রের নাম রাখা হল ABC Computer . তারা এটি তৈরি করেন ১৯৪২ সালে। যার কাজ শুরু হয়েছিল ১৯৩৯ সালে। এতে তথ্য জমা রাখার জন্য ক্যাপাসিটর ও ইন্টারন্যাল লজিকের (Internal Logic) জন্য ৪৫টি ভ্যাকুয়াম টিউব ব্যবহার করা হয়েছিল।

ছবিঃ The ABC Computer

ইনিয়াক কম্পিউটার (The ENIAC)

ENIAC একটি সংক্ষিপ্ত নাম। যার পুরো নাম হল Electronic Numerical Integrator and Calculator. এটির গবেষণা কাল শুরু ১৯৪৩ সাল থেকে, শেষ হয় ১৯৪৬ সালে। ১৯৪৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ জন মউসলি এবং তার ছাত্র প্রেসপার একার্ড মিলে তৈরি করেন প্রথম প্রজন্মের ডিজিটাল কম্পিউটার ENIAC. এটি তৈরিতে প্রায় ৩০ হাজার ভ্যাকুয়াম টিউব ব্যবহার করা হয়েছিল। এর ফলে এর ওজন হয় প্রায় ৩ টন ও এটি চালাতে বিদ্যুত খরচ হত ১৩০ থেকে ১৪০ কিলোওয়াট। এতে প্রতিটি সেকেন্ডে ৫০০০টি যোগ ও ৩৫৭টি গুণ করা যেত। তবে দুঃখের বিষয় হচ্ছে এটিতে প্রোগ্রাম সংরক্ষণের কোন ব্যবস্থা ছিল না। ইনিয়াক কম্পিউটারের জন্য জায়গা দরকার ছিল প্রায় ১ হাজার বর্গফুটের মতো। যার কারণে এটি স্থানান্তিরিত করা যেত না। এটি প্রথম ব্যবহার করা হয়েছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে সামরিক কাজে।

ছবিঃThe ENIAC

এডভ্যাক কম্পিউটার (The EDVAC Computer)

EDVAC এর পূর্ণ রূপ হল Electronic Discrete Variable Automatic Computer. এর কাজ শুরু হয় ১৯৪৬ সালে, আর কাজ শেষ হয় ১৯৫২ তে। এই কম্পিউটারের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল এটিতে প্রোগ্রাম সংরক্ষণের ব্যবস্থা না থাকায় এটির গতি ও কাজের ক্ষমতা ছিল খুবই সীমিত। পরবর্তীতে হাঙ্গেরীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান গণিতবিদ ডঃ জন ভন নিউম্যান (Dr. John Von Neuman) ENIAC এর সমস্যা সমাধানে একটি যন্ত্র তৈরির পরিকল্পনা হাতে নেন। তার পরিকল্পনাতে ছিল, প্রোগ্রাম সংরক্ষণ ও এ থেকে পুনঃ চালনা করা; দশমিকের পরিবর্তে বাইনারি সংখ্যার ব্যবহার; কম্পিউটারের ভিতরে ডেটা সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা। তার এই প্রস্তাবকে বলা হয় সংরক্ষিত প্রোগ্রাম (Stored Program). তার এই্ প্রস্তাবের উপর ভিত্তি করে US Army- Electronic Discrete Variable Automatic Computer বা EDVAC তৈরি করে। ডঃ জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয়।

ছবিঃThe EDVAC Computer

ইউনিভ্যাক কম্পিউটার (The UNIVAC Computer)

UNIVAC প্রথম প্রজন্মের ডিজিটাল কম্পিউটারগুলোর অন্যতম। Universal Automatic computer এর পূর্ণরূপ হল UNIVAC.  ১৯৪৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ জন মউসলি এবং তার ছাত্র প্রেসপার একার্ড মিলে তৈরি করেন প্রথম প্রজন্মের ডিজিটাল কম্পিউটার ENIAC. এটি ছিল অত্যান্ত বড় ও ওজনে ছিল প্রায় ৩০ টন। এটি প্রতি সেকেন্ডে ৫০০০ যোগ বিয়োগ করতে পারত। ইউনিভ্যাক কম্পিউটারের গবেষণা কাজ শুরু হয় ১৯৪৬ সালে, আর তাদের এই গবেষণার সমাপ্তি হয় ১৯৫১ সালে। প্রায় দীর্ঘ ৬ বছর সাধনার পর তারা সফল হন তাদের গবেষণায়। ইউনিভ্যাক কম্পিউটার হল বিশ্বের প্রথম বানিজ্যিক ভাবে নির্মিত ইলেকট্রনিক কম্পিউটার। এটি তৈরিতে প্রায় ৫০০০ ভ্যাকুয়াম টিউব ব্যবহৃত হয়েছিল। এর মূল বৈশিষ্ট্য হল,- প্রতিসেকেন্ডে ৮৩৩০ বার যোগ ও ৫৫৫ বার গুণ করে পারত; ENIAC এর তুলনায় কম বিদ্যুত খরচ হত, গতি ছিল তুলনামূলকভাবে বেশি। যার ফলে আমেরিকার জেনারেল ইলেকট্রনিক কর্পোরেশন UNIVAC কম্পিউটার ১৯৫১ সালে UNIVAC-1 নামে বানিজ্যিকভাবে বাজারজাত করে।পরবর্তীতে আইবিএম কোম্পানী ১৯৫৩ সালে উক্ত কম্পিউটার IBM-650 মডেল হিসেবে বাজারজাত করে।

ছবিঃThe UNIVAC Computer

 

এই ভাবেই এক এক করে সময়ের বিবর্তনে এক এক করে এগোতে থাকে কম্পিউটারসমূহ। এর প্রেক্ষিতে আমাদের বর্তমান কম্পিউটার হয়েছে। মূলত এই কম্পিউটারগুলোই হল বর্তমান কম্পিউটারগুলোর আদি পিতা-মাতা। এগুলো থেকেই তৈরি করা হয়েছে আজকের বর্তমান কম্পিউটারগুলো। কত পরিশ্রম, কত সাধনা, কত সময় ব্যয় করা হয়েছে আজকের এই কম্পিউটার তৈরি করতে; ভাবতে খুবই আশ্চার্য লাগে তাই না????

সবাইকে আবারও অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। আল্লাহ তায়ালা সবার মঙ্গল করুন, আমিন। আল্লাহ হাফেজ………


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

এক নজরে দেখে নেই xampp দিয়ে Joomla ইনিস্টলেশন।
রোবট ও হিউম্যানয়েড রোবট – রোবটের সাথে যুদ্ধ করতে আপনি কি প্রস্তুত?
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভাবনী সেরা পাঁচটি প্রকল্প
চোখ পরীক্ষার অ্যাপ!
সাদিয়া জিতলে জিতবে বাংলাদেশ , বুয়েটের মেধাবী ছাত্রী বাংলাদেশকে তুলে ধরছে আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিযোগ...
যারা HD মুভি ডাউনলোড করতে পারেন না, তারা দেখে নিন কিভাবে নতুন HD মুভি ফ্রীতে ডাউনলোড করতে হয়।
যারা Trickbd তে পোস্ট করতে পারছেন না তারা এদিকে আসুন, Trickbd কে না বলি।

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

অনির্বাচিত টুইটার

®╔═════════════════════ஜ۩۞۩ஜ══════════════════════╗® ✪░░▒▓███►✂✂((((☠☠➸Unsele©ted✖TweeteЯ™➸☠☠))))✂✂◄███▓▒░░✪ ®╚═════════════════════ஜ۩۞۩ஜ══════════════════════╝® www.tunerpage.com

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/science-tech/nasima/3251

18 comments

Skip to comment form

  1. রাসেল

    হুম কম্পিউটার সম্পকে আনেক আজানা তথ্য জানতে পারলাম…………ধন্যবাদ আপু

    1. অনির্বাচিত টুইট

      ধন্যবাদ………

  2. Rubel Orion

    জানার কোন শেষ নেই। তাই জেনে যাচ্ছি। 8)

    1. ডিজিটাল জোন

      Yes, I’m agree with you….. Thanks…………………..

  3. Car in Bangladesh

    Vhalo laglo anek kichui jana chilo na, janlam.

  4. টুইটার অনির্বাচিত

    ধন্যবাদ, তবে টেকটুইটসে বাংলা লেখলে ভাল হত….

    1. zaman

      দুক্ষিত ভাই

    2. টুইটার অনির্বাচিত

      সমস্যা নেই….

  5. আরিফুল ইসলাম (শাওন)

    আসলে প্রথম প্রজন্মের কম্পিউটার গুলোর কথা চিন্তা করলে অনেক সময় ভয়ে কম্পিউটার এর সামনে আসতেও ভয় লাগে। কিন্তু, বতর্মান সময়ে আমরা অনেক সাচ্ছন্দেই কম্পিটার ব্যবহার করছি। 🙂

    1. টুইটার অনির্বাচিত

      এখন আর ভয় লাগে না, এখন নিজে নিজেই সব পারি 😀 🙂 8)

  6. সাইফুল ইসলাম

    ও বাউরে !! এত বড় বড় কমপিউটার !!
    তবে এইগুলাকে কিন্তু কমপিউটার বলা যাবে না। এইগুলা বেশিপিউটার।

    1. টুইটার অনির্বাচিত

      😀 🙂

  7. bright space

    অসাধারন টুইট। থ্যাংকস ফর শেয়ারিং….

    1. টুইটার অনির্বাচিত

      আপনাকেও ধন্যবাদ

  8. Pamela Anderson

    Hi ,
    Nice collection, Thank you for sharing.
    All the best.

  9. md.rifat bara

    অনেক ভাল লাগল।। ধন্যবাদ……………

  10. kedar2222

    প্রিয় বন্ধু, আপনি কম্পিউটার নিয়ে পুরনো দিনের কিছু ইনফরমেশান তুলে ধরলেন…… বিস্তারিত (পুরোটা) বা আপটু-ডেট দিলে খুবই ভালো হতো……… শেয়ার করার জন্ন আপনাকে ধন্নবাদ……..

  11. ctgubs
    ctgubs

    ভাই আপনার কাছে অনেক ঋণী রয়লাম। এত ভাল একটা জিনিস জানতে পেরে।

মন্তব্য করুন