«

»

Alamin Rahman

অনলাইনে আয়, সম্ভাবনা ও প্রতারণার মিশ্র দুনিয়া

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই্। আসা করি সবাই  ভাল আছেন। কিছুদিন আগেও  কিছু কিছু লোক এর চলাফেরা, ছালচলন এমন  ছিল যে, তারা সমাজের সব চেয়ে সুখী ব্যক্তি। যখন জিঞ্জাস  করতাম , তারা বলত মাসে তাদের  আয়  ২০০০০ থেকে ৩০০০০ টাকা। যানেন তো তারা কিভাবে আয় করত? তারা আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে  প্রতিদিন মাত্র ১ -২  ঘন্টা সময় ব্যয় কারে এই টাকা  আয় করত। আর ১-২ ঘন্টা কোন কষ্ট করতে হবে না শুধু ক্লিক আর ক্লিক আর ক্লিক। এখন বুঝতে পারছেন আমি কিসের কথা বলছি।  আমার মনে হয় অনেকেই   বাড়ি, গাড়িও কিনে ফেলেছেন ঐ ক্লিক করে।  যাক সেই সব কথা। মানুষের ধারনা অনেক পরিবর্তন হয়েছে।

অনলাইনে আয় বর্তমান তথা আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির একটি সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র। সারা বিশ্বের ১৬৮ টি দেশের প্রায় ১০০টি দেশেই অনলাইনে আয় চালু রয়েছে। অনলাইনে আয়কে বলা হয় ফ্রিল্যান্সিং অথবা আউটসোরসিং।

ফ্রিল্যান্সিং মানে হল কোন কোম্পানি অথবা ব্যক্তির অধীনে চুক্তির বিনিময়ে কাজ করা। দীর্ঘ দিন ব্যাপি অথবা স্থায়ী কোন কাজ ফ্রিল্যান্সিং এর আওতায় পড়েনা। এখানে যারা কাজ করেন তারা মুক্ত ভাবে কাজ করতে পারেন। তাদেরকে কোন জামানত বা টাকা পয়সা দিয়ে কাজ নিতে হয়না। শুধু মাত্র একটি চুক্তির মাধ্যমে কাজ এবং পারিশ্রমিক নির্ধারিত হয়। (সুত্রঃ উইকিপিডিয়া)

চলমান বিশ্বে অনেকেই তাদের কাজ ফ্রিলেন্সার দের মাধ্যমে করিয়ে নিচ্ছেন। এতে সময় এবং টাকা দুটোই সাশ্রয় হচ্ছে। যেমন ধরা যাক কোন একজন পত্রিকার সম্পাদক ভাবলেন তিনি বেতনভুগি কাউকে রাখবেন না। ফ্রিলেন্সার দের দিয়ে আর্টিকেল পোস্ট করাবেন এবং আর্টিকেল এর সংখ্যা অনুযায়ী টাকা দিবেন। তাহলে সেই সম্পাদকের অনেক টাকা সাশ্রয় হয়। এভাবেই মুলত ফ্রিল্যান্সিং এর ব্যবহার হয়ে থাকে।

ফ্রিল্যান্সিং এর সবচেয়ে বড় সাইট হল odesk কিংবা ফ্রিলেন্সার ডট কম। এই সাইট গুলোতে ফ্রিল্যান্সার রা তাদের মনের মত অর্থাৎ যেই ধরনের কাজে সে পারদর্শী সেই ধরনের কাজের জন্য আবেদন করতে পারে। কাজ প্রদান কারী তাদের কাঙ্খিত ফ্রিল্যান্সারকে বেছে নেন। এভাবে একজন দক্ষ ফ্রিল্যান্সার তার কাজের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারে।

এভাবে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে টাকা আয়ে বাংলাদেশ রয়েছে ২য় অবস্থানে। এতেই বোঝা যাচ্ছে যে বাংলাদেশে হাজার হাজার টাকা রেমিটেন্স আসছে এই ফ্রিলেন্সিং এর মাধ্যমে। অর্থাৎ এই ফ্রিল্যান্সিং এখন বর্তমানে অর্থনৈতিক সচ্ছলতার দারুন উপায়।

কিন্তু দুঃখের বিষয় আমাদের দেশে এই রকম সম্ভাবনাময় একটি ক্ষেত্রের জন্য সরকার প্রণীত কোন নীতিমালা নেই, যার ফলে খুব সহজেই প্রতারিত হচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। ফ্রিল্যান্সিং এর নামে চলছে নামে বেনামে নানা ব্যবসায়। যা কখনই ফ্রিল্যান্সিং অথবা আউটসোরসিং  এর মধ্যে পড়েনা। আর এই কারনে কিছুদিন পর পর আমরা পত্রিকার শিরোনামে কিংবা টেলিভিশনে দেখিডিজিটাল প্রতারনার সংবাদ। যা ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্র টাকেই নষ্ট করে দিচ্ছে।

ইদানিং অনেক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রও খুলা হয়েছে ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য। কিন্তু এগুলাতে সরকারের কোন তদারকি না থাকার ফলে এখানেও অনেকে প্রতারিত হচ্ছেন। সরকার এর নিজ দায়িত্বে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খুলে যদি সবাইকে ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করত তাহলে এই ক্ষেত্রটি আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠত। চাকরির দুর্মূল্যের বাজারে এই ক্ষেত্রটি সত্যিই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি তে সহায়ক ভুমিকা পালন করছে। সরকারের উচিত এই বিষয়ে আরও নজর দেয়ার।

সবাইকে  অনেক  অনেক  ধন্যবাদ। ভাল লাগলে কমেন্টস করবেন।
আমার একটা ব্লগ সাইট আছে   এই লিংকে   এবং   ফেসবুক এও একটা পেজ আছে এই  লিংকে সময় পাইলে ভিজিট করবেন


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

SEO Mindset Home Study Tutorial in Engine
কোয়ান্টাম সংখ্যাতত্ত্বের জনক
কম্পিউটারকে নিরাপদে রাখুন
‘বিপদ বার্তা’ নিয়ে ১৩টি দেশের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করবে বাংলাদেশ।
বিজ্ঞানীদের তৈরি সবচেয়ে কালো বস্তু যা চোখে দেখা অসম্ভব...?
119.90 ডলার মূল্যের এন্টিভাইরাস ব্যবহার করুন ফ্রিতে আর দূর করুন ভাইরাস, ম্যালওয়ারসহ যাবতীয় ক্ষতিকর প...
Lenovo Zuk Z1 পাওয়া যাচ্ছে ডিসকাউন্ট প্রাইজে

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

Alamin Rahman

Alamin Rahman

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/science-tech/alamin-rahman/29936

মন্তব্য করুন