«

»

সাইন্স ফিকশন – প্রতারনা

প্রতারনা
মাহাদী মুহাম্মাদ

বড় মন্টিয়াগো পাহারটির পাদদেশ সংলগ্ন পৃথিবীর শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞান গবেষনাগারে বসে কাজ করা পৃথিবীর সব বড় বিজ্ঞানীদের মধ্যে জন লুসিও কাজ করছেন। তিনি তার কাজটি নিয়ে পুরো উদ্যেমে কাজ করছেন। কারন তিনি যে বস্তুটি আবিষ্কারের জন্য এত কাজ কওে যাচ্ছেন সেটা যদি তিনি বাস্তবে রূপ দিতে পারেন তাহলে সারা দুনিযায় হইচই পড়ে যাবে।

এমন সময় ইন্টারফেসে এই বিজ্ঞান গবেষনাগারের প্রধান মহামান্য নিহান এর চেহারা ভেসে উঠল। তিনি জন লুসিওকে বললেন- “জন লুসিও আমি আপনার মুল্যবান সময় থেকে কিছু সময় পেতে পারি?” জন লুসিও লজ্জিত ভঙ্গিতে বললেন –“ছিঃ কী বলছেন মহামান্য নিহান। বলুন কী করতে পারি?” “আমি কী জানতে পারি আপনি কী করতে যাচ্ছেন? আমি গত কয়েক দিন ধরে লক্ষ্য করছি আপনি একাগ্র মগ্নে কি কাজ করে যাচ্ছেন?” “আমি আসলে আপনাকে ঠিক এখন বলতে চাচ্ছি না মহামান্য নিহান, আমি সফল হলে র্সব প্রথম আপনাকেই অবগত করব।” “আচ্ছা, ঠি আছে। জয় হোক আপনার কাজ- সফল হোন আপনি। বিদায় বিদায়।”

আরও কয়েকদিন কাজ করার পর যখন সর্ম্পূন যন্ত্রটি দাড়িয়ে গেল তখন জন লুসিও নিজের চোখকে বিশ্বাস করাতে পারছিলেন না। তিনি নিজে তৈরি করেছেন বর্তমান পৃথিবীর সবচেয়ে বিষ্ময়কর একটি যন্ত্র। যা দিয়ে মানুষ তার চিন্তা শক্তিকে পরির্বতন করতে পারবে।

জন লুসিও তখন মহামান্য নিহানের সথে যোগাযোগের চেষ্টা করলো এবং অনুমতি নিয়ে সে মহামান্য নিহান এর রুমে প্রবেশ করল। তার সাথে সেই গোলাকার নব-আবিস্কিৃত ‘ইনসিন্যাপ্স’।

মহামান্য নিহান অবাক দৃষ্টিতে সেই গোলাকার যন্ত্রটির দিকে তাকিয়ে বললেন “বলুন এর বৃওান্ত।” “ মহামান্য নিহান এর নাম ‘ইনসিন্যাপ্স’।” “কি বললেন? ‘ইনসিন্যাপ্স’।” “ হ্যা। এটা আমার সাড়ে সাত বছরের সাধনা। এটা দিয়ে মানুষ তার চিন্তাশক্তিকে পরিবর্তিত করতে পারবে, মহামান্য নিহান।” “কিভাবে?” “আমি গবেষনা করে দেখেছি যে মানুষের সমস্ত চিন্তা তার জানা বিষয়গুলো নিয়ে। সে তার জীবনে যা কিছু দেখেছে শুনেছে তাই নিয়ে চিন্তা করতে পারে। এর বাইরে নয়। মানুষ যে কোন পরিস্থিতিতে তার জানা জ্ঞানকে পুজি করে চিন্তা করে এমন কি বিপদেও মুখেও। কিন্তু মানুষ বিপদে পড়লে ভয় পেয়ে যায়। আর বেশি ভয় পেয়ে গেলে তার শরীরের রক্ত প্রবাহ খানিকটা বিগ্ন ঘটে। বিশেষ করে মাথায়। তখন মাথায় ঠিকমত রক্ত প্রবাহ হয় না। ফলে মস্তিষ্কের সিন্যাপ্স তাকে ঠিকমত সংকেত দিতে পারে না তখন সে অসুবিধায় পড়ে যায়। কিন্তু এই যন্ত্রটি মানুষের মস্তিষ্কের সাথে সংযোগ করে দিলে এটা সমস্ত চিন্তাশক্তিকে পুরোপুরি নিজের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে নেবে এবং সঠিক সিদ্ধান্ত দিতে মানুষকে সাহায্য করবে। সবচেয়ে বড় কথা এটার সাহায্যে মানুষ তার অজানা বিষয়গুলো নিয়ে চিন্তা করতে পারবে। এবং এই যন্ত্র মানুষের চিন্তা ভাবনার পরিধিকে বিকৃত তুলবে। এখন বলুন কেমন হয়েছে মহামান্য নিহান।”

মহামান্য নিহান কিছুক্ষন নীরবতা পালন করে বললেন “বিষয়টা বেশ জটিল তবে ঠিকমত কাজ করলে তা নিঃসন্দেহে অবিশ্বাস্য। আমি এটা পরিক্ষা করে দেখেছি মহামান্য নিহান। এটা সত্যিই কাজ করে। আমি এখন এটা মানুষের হাতে হাতে পৌছে দিতে আপনার অনুমতি চাই। “ঠিক আছে।” বললেন মহামান্য নিহান।

বছর তিনেক পরের কথা,সবাই যখন এই ‘ইনসিন্যাপ্স’ ব্যাবহার করছে তখন এক সময় মহাজাগতিক প্রানীরা তাদের নব আবিষ্কিৃত মরনঘাতি বোমা ‘বাইব্যালেন্স’ ভুলক্রমে পৃথিবীতে পাঠাল। সেটা এসে জন লুসিওর সামনে পড়ল। বোমাটির একটি অংশের উপর লেখা ‘ Please don’t press the yes button ’ কিন্তু যে যন্ত্র তার মস্তিষ্কে, তা অজানা বিষয়গুলো নিয়ে চিন্তা করে ফলে সে নিজের অজান্তে button চাপল।

 


 


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

দ্বৈতসত্তা
প্রডিজি - মুহম্মদ জাফর ইকবাল
ধারাবাহিক বিজ্ঞান-কল্পকাহিনি “রুনের ঘটনাপঞ্জী” (ক্রম-২)
Nearby Places & Restaurants Finder অ্যাপ্লিকেশন
পিবাজারে গল্প লিখে জিতুন স্মার্টফোন
MateClix কি ?MateClix থেকে আয় করুন প্রতিদিন 5 ডলার৷20,000 মেম্বার হওয়ার আগেই Register করে নিয়ে নিন F...
Paywao থেকে আয় করুন মাসে হাজার হাজার টাকা মাত্র ২ ডলার ইনভেস্ট করে। প্রতি ক্লিক এ পাবেন ০.০৪সেন্ট।

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

mahdi

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/science-fiction/mahdi/4698

8 comments

Skip to comment form

  1. zahid hassan

    mahdi ভাই আপনি মনে হয় পোস্ট টি বিজয় কীবোর্ডের সাহায্যে লিখেসেন । আপনি অভ্র কীবোর্ড আর সাহায্য লেখেন, তাহলে এক নিমিষেই বাংলা ভালভাবে লিখতে পারবেন। আপনি
    http://omicronlab.com/download/setup_avrokeyboard_5.1.0.exe
    এখান থেকে সফটওয়ারটা ডাউনলোড করে নিন। তাহলেই ভালভাবে বাংলা লিখতে পারবেন।

  2. ঐ ছেলেটি
    jakir

    এ গল্পে কি আরো আছে না এখানেই শেষ?
    মাহাদি ভাই,আপনি বিজয়তে লিখলে ও http://bnwebtools.sourceforge.net/ এখানে গিয়ে তা ইউনিকোডে পরির্তন করতে পারবেন। আশা করি পারবেন। ধন্যবাদ আমাদের সাথে সুন্দর সুন্দর সাইন্স ফিকশনগুলো শেয়ার করার জন্য।

  3. mahdi

    ধন্যবাদ টিপস দেবার জন্য।

  4. mahdi

    হা,গল্প আখনেই সেস।সে যেহেতু yes button চেপেছে তাহলে তার মৃত্যু অনিবার্য।

  5. Rubel Orion

    বেশ বেশ বেশ! 🙂 চালিয়ে যান!

  6. MSPOLASH

    ধন্যবাদ আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য 🙂

  7. md.rifat bara

    অই তোর গল্পের শেষের দিক টা বেশি ভাল হয় নাই। তুই আর ভাল লিখতে পারস। সুতরাং পরের গুলা ভাল কইরা লিখিস। এমনিতে পুরা গল্পটা ভাল হইসে। তুই আরও ভাল করবি। এগিয়ে যা।

  8. sabuj

    sob ses koira dile….sese kischu rakli na.

মন্তব্য করুন