«

»

প্রজন্মের ডাক : রক্তে আমার ‘৭১


ডিসেম্বার মাসের প্রথম প্রহর আমাদের জানান দেয় রক্ত অর্জিত স্বাধীনতার কথা। ১৯৭১ সালের পর অনেকগুলো বছর পেরিয়ে গেছে, তাতে মুক্তিযুদ্ধোর আবেগ এতটুকু কমেনি, কমেনি দেশ ও যোদ্ধাদের জন্য ভালোবাসা। তবে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ, আহত মুক্তিযোদ্ধারা ও তাদের পরিবার যেভাবে বুকে ধারন করে মুক্তিযুদ্ধো আমরা তাদের মত পারিনা। তারা যেভাবে নয় মাস ও ১৬ ই ডিসেম্বার স্মরন করে আমরা কি সেভাবে পারি?


আমরা যারা নতুন প্রজন্মের তারা কেউই স্বাধীনতার জন্য মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি। যারা মুক্তিযুদ্ধো করেছে, তারাও আমাদের ছেড়ে চলে যাচ্ছে ধীরে ধীরে। তাই তাদের কাছে যুদ্ধের গল্প শোনাও হয়না কখনো। তবে তার মানে এই না আমরা স্বাধীনতার কথা ভুলে গেছি বা যাবো। তরুন প্রজন্মের কাছে ১৯৭১ সালের ১৬ ই ডিসেম্বার অদেখা হলেও অজানা নয়। ২০১১ বা এর আগের ১৬ ই ডিসেম্বার তাদের জানা চেনা। সেটা কি ঠিকভাবে উপলব্ধি করছে তারা?

বর্তমান প্রজন্মের কাছে ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো ব্যাপক জনপ্রিয়। তাদের সময় অনুভুতি চিন্তার বহিঃপ্রকাশ এই ইন্টারনেট বা সাইবার পৃথিবী। তাই চিন্তা ভাবনা চেতনা ও অনুভুতির বহিঃপ্রকাশ ঘটে ফেসবুক, ব্লগ সাইট ও টুইটারের মত সামাজিক যোগাযোগের সাইটগুলোতে।

ইন্টারনেট ব্যাবহারকারীর বেশিরভাগই ১৬ থেকে ২৮ বছর বয়সী তরুন তরণী। আদের কেউই দেখেনি মুক্তিযুদ্ধো। কেউই দেখেনি ১৯৭১ সাল বা তার আগের সময় কাল। ডিসেম্বার মাসের শুরু থেকে সামাজিক যোগাযোগের প্রায় প্রত্যেকটা মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে মুক্তিযুদ্ধোর ছবি, পতাকার ছবি, দেশের গল্প মুক্তিযুদ্ধের গল্প, ১৯৭১ এর গল্প, মুক্তিযোদ্ধার গল্প, বীরের গল্প। যেন লাল সবুজের পতাকায় রঙ্গিন হয়ে উঠেছে সমস্ত পৃথিবী, সমস্ত আবেগ, সমস্ত চেতনা, সমস্ত বিশ্বাস। এই প্রজন্মের কেউই ভুলে যায় নি সেই ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা। অনেক মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত লাল সবুজের পতাকা।

অনেকেই প্রশ্ন করেন তরুন প্রজন্ম কি পারবে মুক্তিযুদ্ধোকে বুকে ধারন করে নিতে? অদেখা একটা গৌরবের ইতিহাসকে শতকের পর শতক বুকে ধারন করে রাখতে?

এক্ষত্রে আমাদের প্রয়োজন মুক্তিযুদ্ধোর সঠিক ইতিহাস সংরক্ষন, চর্চা ও ছড়িয়ে দেওয়ার মানুষিকতা। ভুল তথ্য প্রচার, প্রকাশ ও আমাদের রাজনৈতিক দলগুলোর রেষারেষির কারনে সঠিকভাবে হচ্ছেনা তেমন কোন অগ্রগতি। নতুন প্রজম্ন যতটুকু জানে, নিজদের চেষ্টায় ও কেউ যখন তাদের জানায়। ডিসেম্বার, স্বাধীনতা ও আমাদের লাল সবুজের পতাকা অর্জন আমাদের শেখায় অন্যায়ের প্রতিবাদ, নিজের অধিকার আদায়, সত্যের পথে লড়াই, দেশ মায়ের জন্য অদম্য ভালোবাসা, যা ভবিষ্যৎ প্রজম্নের জন্য অনেক বেশি জরুরী। এই স্পৃহা তরুন প্রজন্মকে দেশকে ভালোবাসা রক্ষা ও দেশের জন্য কিছু করতে শেখাবে। তাই মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানা ও এই ইতিহাস থেকে প্রেরনা নিয়ে দেশের জন্য নিজের জন্য কিছু করার শক্তিটুকু আমাদের অর্জন করতে হবে।

শুধু সরকার ও সরকারের প্রশাসনিক কর্মকর্তারা যে মুক্তিযুদ্ধো জানাতে পারবেন তার আশায় বসে না থেকে আমাদের নিজেদেরও জানার প্রচেষ্ঠা রাখতে হবে। এই জানাটা নতুন প্রজন্মের জন্য অনেক বেশি জরুরী। দেশ ও নিজেদের গড়তে হলে এই মুক্তিযোদ্ধো ও স্বাধীনতা সঠিক ইতিহাস সবার সামনে আসা অনেক বেশি জরুরি। প্রাইমারী, সেকেন্ডারী এমনকি উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষায় মুক্তিযুদ্ধোর সঠিক গল্প চেতনা সঠিক ও পরিকল্পিত উপায়ে তুলে ধরা উচিৎ। আমাদের শিক্ষা ব্যাবস্থায় জটিলতার কারনে শিক্ষার্থীরা ভালো ভালো পড়াগুলোকে ভালোভাবে নিতে পারেনা। তাই এই ব্যাপারে খুব গুরুত্ব দেওয়া উচিৎ আমাদের নীতি নির্ধারকদের। শুধু পাশ করার জন্য মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নয়, মা ,দেশ ও নিজেকে গড়ার জন্য এই গৌরবের ইতিহাস জানা আমদের অনেক বেশি জরুরি। শুধু ডিসেম্বার নয়, সমস্ত জীবন যেন তরুনরা এই লাল সবুজের পতাকাকে ভালোবেসে বুকে ধারন করতে পারে।

মুক্ত চিন্তার মানূষগুলোর ব্লগ> সুডো ব্লগ


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

Yahooo! বাংলা থেকে ইংরেজী বা ইংরেজী থেকে বাংলাতে অনুবাদ করুন
*আসুন অন্তত একটি স্বপ্নকে বাঁচিয়ে আমরা প্রমাণ করি যে আমরা দুর্বল নই আমাদের মানসিকতা অনেক বড় ।
আমাদের স্বাধীনতা এবং স্বপ্নগুলি।
নারী দিবস উপলক্ষে অবিস্মরনীয় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য আনা-ফারিয়া আপাকে অভিনন্দন! আসুন আনা-ফারিয়া আপ...
ইউ.এস.টি.সি মেডিকেল কলেজ। - আমাদের চট্টগ্রাম
প্রোফেসনাল মোবাইল অ্যাপস ডিজাইন এবং ডেভেলপ কোর্স !
জেনে নিন কিভাবে জে.এস.সি / জে.ডি.সি পরীক্ষা ২০১৪ এর খাতা পূনঃনিরীক্ষণ এর জন্য আবেদন করবেন ।

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

Rubel Orion

ফেসবুকে আমিঃ https://www.facebook.com/mosharrof.rubel

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/my-bangle/rubel/17537

4 comments

Skip to comment form

  1. MNUWORLD

    লাল-সবুজের এই পতাকার মান আমরা রাখতে সর্বদা সচেষ্ট!!

  2. Rubel Orion

    অবশ্যই। 😀

  3. Mehedi

    আমাদের এক একটি হাতের ছোয়ায় বদলে যাবে আমাদের এই প্রিয় স্বদেশ। সেই প্রত্যাশাই ব্যাক্ত করছি আজকের এই দিনে।

  4. Mehedi

    শুধু ডিসেম্বার নয়, সমস্ত জীবন যেন তরুনরা এই লাল সবুজের পতাকাকে ভালোবেসে বুকে ধারন করতে পারে।

মন্তব্য করুন