«

»

Abdul Mannan Asif

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক অনন্য নিদর্শন মিরসরাইয়ের মুহুরী প্রজেক্ট। – আমাদের চট্টগ্রাম

ফেনী নদী, মুহুরী নদী এবংকালিদাস পাহালিয়া নদীর সম্মিলিত প্রবাহকে আড়ি বাঁধ নির্মাণের মাধ্যমে ৪০ ফোক্ট বিশিষ্ট একটি বৃহদাকার পানি নিয়ন্ত্রণ কাঠামো তৈরী করে ফেনী জেলার ফেনী সদর, ছাগলনাইয়া, পরশুরাম, ফুলগাজী, সোনাগাজী এবং চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই উপজেলার কিয়দংশ এলাকায় বর্ষা মৌসুমে বন্যার প্রকোপ কমানো ও আমন ফসলে অতিরিক্ত সেচ সুবিধা প্রদানের উদ্দেশ্যে নির্মিত হয়েছিল মুহুরী সেচ প্রকল্প।

মিরসরাই উপজেলা সদর থেকে ৯ কিলো

মিটার উত্তরে জোরারগঞ্জ বাজার। এ বাজারের উত্তর পাশ দিয়ে পশ্চিম দিকে বয়ে গেছে মুহুরী প্রজেক্টের সড়ক। এটি প্রজেক্ট রোড হিসেবেই সর্বমহলে পরিচিত। আজমপুর বাজার হয়ে একটু দক্ষিণে গেলেই দেখা যাবে বেড়িবাঁধ।

১৯৮৫ সালে প্রায় ৪০ হাজার হেক্টর জমিতে ১৫৬ কোটি ৮৬ লাখ ২০ হাজার টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হয় সেচ প্রকল্পটি। ১৯৭৮ সালে এ প্রকল্পটির কার্যক্রম শুরু হয়ে ছয় বছর শেষে বাস-বায়িত হয়। এতে রয়েছে ৪০ দরজাবিশিষ্ট একটি রেগুলেটর।
প্রজেক্টের রেগুলেটরের ৪০ দরজায় একসাথে যখন পানিপ্রবাহ শুরু হয় তখন কেবল শোনা যাবে শোঁ শোঁ আওয়াজ। সেই সাথে হিমেল হাওয়ার মৃদু ছোঁয়া সব মিলিয়ে অন্য রকম এক রোমাঞ্চকর ভালো লাগার অনুভূতি।
জোয়ারের পানি যখন উথলে ওঠে তটরেখায় আছরে পড়ে ছোট-বড় ঢেউ, তখন এক অপরূপ সৌন্দর্য বিকশিত হয় মুহুরী প্রজেক্টে। লোনা পানিতে ঘন সবুজ অরণ্যের সবুজ ছাউনি। নীল আকাশের বিশালতার নিচে সবুজের সমারোহ। এ যেন প্রকৃতির এক মনোরম দৃশ্য। প্রাকৃতিক সৌন্দ‌্যর্যে ভরপুর মুহুরী রেগুলেটরের চারদিকে বাঁধ দিয়ে ঘেরা কৃত্রিম জলরাশি, বনায়ন, মাছের অভয়ারণ্য, পাখির কলকাকলি, বাঁধের দুপাশে নীচে খেকে পাথর দিয়ে বাঁধানো এবং উপরদিকে দুর্বা ঘাসের পরিপাটি বিছানা।

অনেক ছেলে-বুড়ো নৌকা নিয়ে বসে থাকে সারি সারি হয়ে। দর্শনার্থী দেখলেই প্রতিযোগিতার মতো ছুটে আসে নৌকা নিয়ে। এক ঘণ্টা নৌকায় চড়িয়ে প্রকৃতির সব সৌন্দর্য দেখিয়ে আনন্দ দেয়ার মূল্য নেয়া হয় ৮০ টাকা। প্রায় ৪০ হাজার হেক্টর এলাকাজুড়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে বিলিয়ে যাচ্ছে এ প্রকল্পটি। এখানে রয়েছে পাখপাখালির কলকাকলিতে মুখরিত বিশাল বনানী, যা শীতের সময় পরিণত হয় বিভিন্ন প্রকার অতিথি পাখির অভয়ারণ্যে। মুহুরী জলরাশিতে নৌভ্রমণের সময় খুব কাছ থেকে বিভিন্ন প্রজাতির হাঁস এবং প্রায় ৫০ জাতের হাজার হাজার পাখির দেখা পাওয়া যায়।
সৌন্দর্যপিপাসু পর্যটকেরা এখানে এলে মুহুরী প্রজেক্টের মনমোহনী রূপে মুগ্ধ হয়। দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই সারিবদ্ধভাবে বাঁকে বাঁকে গরু-মহিষ নিয়ে ঠিকানায় ফিরে রাখালেরা।

এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

এবার জানুন আমাদের প্রিয় বাংলাদেশকে
আমাদের সুন্দর সুন্দরবন জন্য নতুন প্রকৃতির সপ্ত আশ্চর্য তড়িৎ ভোট করুন.
অনুবাদক ১৪১৮ (ইংলিশ থেকে বাংলা অনুবাদ করার software)
Scholarship for Bangladeshi Students
মোবাইল থেকেই কপি করুন বাংলা লেখা
আপনি কি বিভিন্ন দেশের ভাষা শিখতে চান? তাহলে আমার ধারাবাহিক টিউন দেখুন।আজ প্রথম পর্বে হিন্দী ভাষা শিখ...
অনলাইনে “ইংরেজি থেকে বাংলা অভিধান”।

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

Abdul Mannan Asif

Abdul Mannan Asif

ভাল কিছু করতে গেলে অনেক কষ্ট পোহাতে হয়, কিন্তু একটা সময়ের পর কাজের ফলটা চরম আনন্দ দেয় :) মুখবইয়ে আমি ২০১১ইং খেকে টেকটুইটসএ এডমিন, ২০১২ইং থেকে SkippeR তে Web Developer হিসাবে কাজ করছি।

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/my-bangle/amasifbd/32259

মন্তব্য করুন