«

»

Abdul Mannan Asif

মুক্ত সফটওয়্যারের মুক্ত পেশা

মুক্ত প্রোগ্রামিং সংকেত সফটওয়্যারের জগৎটি এমন যে এখানে যুক্ত থেকে কাজ করার জন্য সব সময়ই পেশাদার প্রোগ্রামার হওয়ার প্রয়োজন হয় না। মুক্ত সোর্স প্রোগ্রামিংয়ের কাঠামোটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যেন সৃজনশীল যে কেউ-ই তার চিন্তা বিকশিত করতে পারে।
মুক্ত সোর্স প্রোগ্রামিংয়ের ভাষাগুলো এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যেন প্রোগ্রামিংয়ে খুব গভীর দক্ষতা ছাড়াই কাজে সম্পৃক্ত হওয়া যায়। উদাহরণ হিসেবে পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষায় কথা বলা যেতে পারে। পাইথন ব্যবহার করে নতুন কিছু তৈরি করার জন্য প্রোগ্রামিং দক্ষতা থেকে সৃজনশীলতার বেশি প্রয়োজন হয়ে থাকে।
মুক্ত সোর্স প্রকল্পগুলোতে সাধারণত বহু সংখ্যক মানুষ সম্পৃক্ত থাকে এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে এ প্রকল্পগুলো সমন্বয় করা হয়ে থাকে। বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে ডেভেলপাররা এসব প্রকল্পে যুক্ত হয়ে থাকেন। এখানে অন্য প্রোগ্রামারদের সঙ্গে কাজ করার মাধ্যমে নিজের দক্ষতা সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায় এবং একই সঙ্গে দক্ষতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রেও অন্যদের সহযোগিতা নেওয়া যায়। এসব প্রকল্পে কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকলে তা পরবর্তী সময়ে পেশাদারি জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকা প্রতিষ্ঠানগুলো যেমন গুগল, মাইক্রোসফট, আইবিএম, ওরাকল ইত্যাদি নতুন কাউকে নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে ওপেন সোর্স প্রকল্পে সম্পৃক্ততার গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে থাকে এবং এ প্রতিষ্ঠানগুলো একাধিক মুক্ত সোর্স প্রকল্পের তত্ত্বাবধায়নের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত আছে এবং একই সঙ্গে মুক্ত সোর্স প্রকল্প নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী ডেভেলপারদের প্রতিবছরই এসব প্রতিষ্ঠান থেকে বৃত্তি দেওয়া হয়ে থাকে।
কিছুদিন আগ পর্যন্তও মুক্ত সোর্স প্রকল্প বলতে কেবল লিনাক্স বা জাভার কথা মনে হতো, কিন্তু বর্তমানে এ ধারণাটি অনেকাংশেই বদলেছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে একাধিক নতুন অ্যাপলিকেশন এবং বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প।

বর্তমান সময়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট অন্যতম জনপ্রিয় একটি পেশা। আর এ ওয়েবসাইট তৈরির জন্য ওয়ার্ডপ্রেস, জুমলা এবং দ্রুপালের মতো কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমগুলো (সিএমএস) ব্যাপকভাবে ব্যবহূত হচ্ছে। আর এর ফলেই প্রয়োজন হচ্ছে এ ক্ষেত্রে দক্ষ ডেভেলপারদের। জনপ্রিয় সিএমএসগুলোর প্রায় সব কটি মুক্ত সোর্স।

এ সিএমএসগুলো এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যেন প্রাথমিক কাজটি যেকোনো ব্যবহারকারীই করতে পারে। এর মাধ্যমে সাধারণ মানের ওয়েবসাইট খুব অল্প সময়ে তৈরি করা সম্ভব হয়। পাশাপাশি বর্তমানে মুক্ত সোর্স ডাটাবেস, মোবাইল, ই-কমার্স, ওয়েব সার্ভারের মতো ক্ষেত্রগুলোতেও দক্ষ লোকের চাহিদা বাড়ছে। মুক্ত সোর্স এ প্রকল্পগুলো সম্পর্কে ভালো দক্ষতা থাকলে খুব সহজেই এ কাজগুলো করতে পারা যাবে।
যেভাবে শুরু করতে হবে: মুক্ত সোর্সের ক্ষেত্রটি এতটাই বিশাল যে সাফল্য পাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট করে একটি পথ বলে দেওয়া সম্ভব নয়। তবে পূর্বশর্ত হলো, আগে কাজে নামতে হবে। আর এ বিষয়টি কখনোই নির্দিষ্ট নয় যে মুক্ত সোর্স নিয়ে কাজ করলে মালিকানাধীন বা প্রোপ্রাইটরি কোনো প্রকল্পে কাজ করা যাবে না। বরং দুটি প্রকল্পেই সমানভাবে অংশগ্রহণের সুযোগ আছে।
মুক্ত সোর্স প্রকল্পে কাজ করলে নতুন কিছু শেখার সুযোগ থাকে। অধিকাংশ বড় প্রকল্পেই বিশ্বমানের প্রোগ্রামাররা যুক্ত থাকেন। এসব প্রকল্পের মাধ্যমে তাঁদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ এবং তাঁদের সাহচর্যে কাজ করার সুযোগ পাওয়া যায়, যা সহজে অন্য কোনো পথে পাওয়া সম্ভব নয়। প্রকল্পগুলোতে যুক্ত থেকে যে কাজ করা হবে, তার প্রতিটিই জীবনবৃত্তান্তে যোগ করা যাবে এবং এটি নিশ্চিতভাবে বলা যায় যে এ মুক্ত সোর্স প্রকল্পগুলোতে সম্পৃক্ত থাকে এবং এ অভিজ্ঞতা ভালো চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ নিয়ামক হিসেবে কাজ করবে।
কেমন প্রস্তুতি প্রয়োজন: প্রোগ্রামিংয়ের প্রাথমিক ধারণা অর্জন করার জন্য কম্পিউটার বিজ্ঞানে লেখাপড়া করা বাধ্যতামূলক নয়। তবে এটি ঠিক যে কম্পিউটার বিজ্ঞানে শিক্ষার্থীদের প্রথম দিকে কিছুটা সুবিধা হতে পারে, কিন্তু ভালো মানের অন্যান্য যেকোনো প্রশিক্ষণকেন্দ্র থেকেই এ বিষয়গুলো শিখে নেওয়া যায়।
মুক্ত সোর্স প্রকল্পগুলোর ঠিকানা:

সোর্সফোর্জ (www.sourceforge.net): তিন লাখের অধিক মুক্ত সোর্স প্রকল্প এখানে রাখা আছে। প্রোগ্রামারদের অন্যতম পছন্দের স্থান।

গুগল কোড (www.code.google.com): মুক্ত সোর্স প্রকল্পগুলোকে সহায়তা করার লক্ষ্যে গুগলের একটি প্রচেষ্টা। গুগল নিজেদের মুক্ত সোর্স প্রকল্পগুলো এখানে হোস্ট করার পাশাপাশি সাধারণ ব্যবহারকারীদেরও এখানে যুক্ত হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে।

কোডপ্লেক্স (www.codeplex.com): ওপেন সোর্স কমিউনিটির আরও একটি জনপ্রিয় স্থান। এটি মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে তত্ত্বাবধায়ন করা হয়ে থাকে।
এগুলো ছাড়াও অ্যানড্রয়েড, মোজিলা, অ্যাপাচি, ফেডোরার মতো বাণিজ্যিক প্রকল্পগুলোতে যুক্ত থেকে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।

তথ্য সুত্র : প্রথম আলো


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

ইন্টারনেটে চ্যাট করে ডলার আয় করুন খুব সহজে।
বিড ছাড়া ছোটো ছোটো কাজ করে নেটবিল চালানোর মতো টাকা আয় করুন !!
মাষ্টার অফ এস ই ও সিরিজ (প্রথম-খণ্ড) সার্চ ইঞ্জিনের কাযর্প্রণালী – পঞ্চম অধ্যায়
ফেইসবুক এর মতো সাইট থেকে টাকা কামাবেন l ফ্রী রেজিষ্ট্রেশন বন্ধ হওয়ার আগে রেজিষ্ট্রেশন করে নিন l
এবার বাবলিউস এর মতো সাইট থেকে ফাইল শেয়ারিং করে আয় করুন।ফ্রী রেজিষ্ট্রেশন বন্ধ হওয়ার আগে রেজিষ্ট্রেশন...
আয় করুন risingtraffic এর বিজ্ঞাপন লিঙ্ক এ ক্লিক করে দৈনিক $0.10 আর রেফারেল এর ক্লিক থেকে 100% কমিশন...
প্রতিদিন $০.১০ থেকে $১০ পর্যন্ত আয় করুন ফ্রীতে ...

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

Abdul Mannan Asif

Abdul Mannan Asif

ভাল কিছু করতে গেলে অনেক কষ্ট পোহাতে হয়, কিন্তু একটা সময়ের পর কাজের ফলটা চরম আনন্দ দেয় :) মুখবইয়ে আমি ২০১১ইং খেকে টেকটুইটসএ এডমিন, ২০১২ইং থেকে SkippeR তে Web Developer হিসাবে কাজ করছি।

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/freelancing/amasifbd/12815

4 comments

Skip to comment form

  1. MNUWORLD

    সুন্দর একটি পোষ্ট। ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য।

  2. Abdul Mannan Asif
    Abdul Mannan Asif

    আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ কমেন্ট করার জন্য।

  3. ঐ ছেলেটি
    jakir

    আমাদের সাথে শেয়ারের জন্য ধন্যবাদ আসিফ ভাই।

    1. Abdul Mannan Asif
      Abdul Mannan Asif

      জাকির ভাই, আপনাকে মুবারক বাদ কমেন্ট করার জন্য

মন্তব্য করুন