«

»

অনুপম শুভ্র

বাংলাদেশে ওডেস্ক পেওনিয়ার প্রিপেড ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে অর্থ প্রাপ্তি

বাংলাদেশে ওডেস্ক পেওনিয়ার প্রিপেড ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে অর্থ প্রাপ্তি

 

 

ওডেস্ক (www.odesk.com) থেকে অর্থ প্রাপ্তি অনেক সহজ কাজ কারণ এখানে ৫টি পদ্ধতি রয়েছে টাকা পাওয়ার। তার একটি হলো পেওনিয়ার। বাংলাদেশে অথবা সেসব দেশে যেখানে পেপেল সুবিধা নেই সেখানে অনলাইনের টাকা পাওয়ার অন্যতম শ্রেষ্ঠ পদ্ধতি হচ্ছে পেওনিয়ার প্রিপেড ডেবিট কার্ড।

(প্রসঙ্গত বলে রাখা ভালো – ফ্রিল্যান্সারদের বহু আরাধ্য অনলাইন অর্থ ব্যবস্থা পেপাল আগামী তিন মাসের মধ্যে বাংলাদেশে কাজ শুরু করবে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মুহিত এবং ওডেস্ক এর সুূত্র থেকে জানা যায়, কোন মাদ্ধম ছাড়া সরাসরি আপনার ব্যাংক একাউন্ট এ টাকা আনার ব্যাবস্থা ও চালু হতে যাচ্ছে এই বছরের শেষে। এই সুবিধা ফিলিপাইন পাচ্ছে।)

বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং সাইট (মার্কেট প্লেস) থেকেও টাকা উত্তোলনের সহজ এবং ঝামেলামুক্ত পদ্ধতি হচ্ছে Payoneer সাইট কর্তৃক প্রদত্ত একটি ডেবিট মাস্টারকার্ড

এই পদ্ধতিতে আপনি টাকা খুবই দ্রুত পৃথিবীর যেকোন স্থান থেকে ATM এর মাধ্যমে উত্তোলন করতে পারেন। উত্তোলনের পাশাপাশি কেনাকাটাও করতে পারবেন (অনলাইনে এবং আশে পাশের দোকার/মারকেট থেকে। এমনকি এর মাধ্যমে বিদেশে অবস্থিত আপনার কোন আত্মীয় বা বন্ধুবান্ধব তাদের মাস্টারকার্ড বা ভিসা কার্ড থেকে আপনাকে টাকা পাঠাতে পারবে।

(চয়েস ব্যাংক (USA) এই কার্ড টা ইস্যু করে, আর লাইসেন্স দেয় MasterCard International Incorporated.)

পেওনার সাইট থেকে সরাসরি এই কার্ডের জন্য আবেদন করা যায় না। এটি পেতে হলে ফ্রিল্যান্সিং যে কোন একটি সাইট (রেন্ট-এ-কোডার, গেট-এ-ফ্রিল্যান্সার বা ওডেস্ক)-এ আপনার একটি একাউন্ট থাকতে হবে।

পেওনিয়ার প্রিপেড ডেবিট কার্ড কি?

এটি অন্য সব ক্রেডিট কার্ডের মতই, এটি একটি বাস্তব কার্ড (ভার্চুয়াল নয়), এটি অন্য সকল প্লাস্টিক কার্ডের মতই কাজ করে, এটি একটি প্রিপেড বা ডেবিট কার্ড আর এরজন্যে আপনার কোন ব্যাংক একাউন্টও থাকা প্রয়োজন নয়। এটি আপনার অডেস্ক প্রোফাইলের সাথে সংযুক্ত থাকে আর আপনি আপনার অডেস্ক ইনকাম ডেবিট কার্ডে নিয়ে আসতে পারেন।

কিভাবে অডেস্ক মাস্টারকার্ডের জন্যে আবেদন করবেন?

অডেস্কে গিয়ে পেমেন্ট মেথড্‌-এ প্রবেশ করে “অডেস্ক ডেবিট কার্ড পাওয়ারড্‌ বাই পেওনিয়ার”-এর জন্যে সাইন-আপ করেন। আপনার বিবরণ দিন, ফর্মটি ভালোভাবে পূরণ করেন আর এরপর আপনি একটি সিকিউরিটি ডকুমেন্ট দাখিল করবেণ। (National ID/Passport or Driving L.)এখানের দ্বিতীয় এড্রেসটি বা ঠিকানাটি হচ্ছে আপনার সেই ঠিকানা যেখানে পেওনিয়ার তাদের মাস্টারকার্ডটি আপনার নিকট পাঠাবে। আপনি এ ঠিকানাটি ব্যবহার করতে পারেন বিল পরিশোধ ঠিকানা হিসেবে অথবা শিপিং ঠিকানা হিসেবেও। ফর্মের তৃতীয় ভাগে, আপনার পাসওয়ার্ড নাম্বার/ড্রাইভিং লাইন্সেস নাম্বার/জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার(ভোটার আইডি যদি থাকে) জানতে চাওয়া হবে।

এপলিকেশন বা আবেদনটি দাখিল করার পর, পেওনিয়ার আপনার বিবরণ যাচাই করে দেখবে আর আপনি যদি অডেস্ক প্রিপেড মাস্টারকার্ড পাওয়ারড্‌ বাই পেওনিয়ার পাওয়ার যোগ্য হন তবে তারা কার্ড পাঠাতে রাজি হবে।

একবার আপনার আবেদন সম্মতি পেয়ে গেলেই তারা সাধারণ ডাক মাধ্যমে আপনার কার্ডটি আপনার নিকট পাঠিয়ে দিবে।

সাধারনর ওরা রাজি হয়, যখন দেখবে আপনার ওডেস্ক একাঊন্ট এ কিছু টাকা আছে।

প্রশ্নঃ আমি কি অডেস্ক ডেবিট মাস্টার কার্ডের জন্যে আয় রোজগার বা চাকরী পাওয়ার আগে আবেদন করতে পারবো ?

উত্তরঃ অবশ্যই আপনি আবেদন করতে পারেন, কিন্তু আমার মনে হয় না যে পেওনিয়ার এই আবেদনটি গ্রহণ করবে। কারণ, আপনাকে কার্ড দেওয়ার জন্যে তারা একটাই লাভ পায় সেটা হলো আপনার কাছ থেকে পাওয়া মাসিক চার্জ। যদি কোন আয় রোজগারই নেই, তবে মাস্টারকার্ড নেওয়াটাও অহেতুক।

প্রশ্নঃ আমি কি বাংলাদেশ থেকে অডেস্ক পেওনিয়ার ডেবিট মাস্টারকার্ড-এর জন্যে আবেদন করে কার্ড পেয়ে যাবো?

উত্তরঃ হ্যাঁ। আপনি পেয়ে যাবেন আর বাংলাদেশে ইতোমধ্যে হাজার হাজার ফ্রি-লেন্সার বা অস্থায়ী কর্মী অডেস্কে কাজ করছে। একটি হিসেব অনুযায়ী এ পরজন্ত ৭২০০০০ ঘন্টা কাজ হয়েছে বাংলাদেশ থেকে যা অডেস্ক এর কাজের ১২%।

প্রশ্নঃ বাংলাদেশে অডেস্ক পেওনিয়ার ডেবিট মাস্টারকার্ড পেতে কত সময় লাগতে পারে ?

উত্তরঃ অডেস্ক ডেবিট কার্ডটি আপনার ঠিকানায় সাধারণ ডাক দ্বারা পাঠানো হবে(কোন বানিজ্যিক ডাক। যেমনঃ ফেডেক্স কিংবা ইউপিএস-এ নয়) আর এতে আপনার ঠিকানায় কার্ডটি পৌছাতে প্রায় ২০ থেকে ২৫ দিন সময় লেগে যেতে পারে। (অনেক সময় কার্ড আসে না ডাক বিভাগের কারনে)

আরো দ্রুত আনতে পাড়েন ডিইচ এল এর মাদ্ধমে – ৩-৫ দিন লাগবে। এতে গ্যারান্টি আছে। তাই ডিএইচ এল ই ভালো।

প্রশ্নঃ অডেস্ক ডেবিট কার্ড পাওয়ারড্‌ বাই পেওনিয়ার-এর মাসিক চার্জ আর উত্তোলন চার্জ কত?

উত্তরঃ ATM থেকে নুন্যতম উত্তোলন চার্জ হবে ২ ডলার। আপনার ডেবিট কার্ডের মাসিক চার্জ ৩ ডলার। তবে তিনের অধিক উত্তোলন হলে ১ ডলার মাসিক।

প্রশ্নঃ “অডেস্ক ডেবিট কার্ড পাওয়ারড্‌ বাই পেওনিয়ার” ব্যবহার করে টাকা উঠানোর জন্যা আমি কোথায় এটিএম কেন্দ্র খুঁজে পাবো?

উত্তরঃ আপনি যেকোন এটিএম কেন্দ্র বা বুথ্‌ থেকে অডেস্ক ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা উঠাতে পারেন। এই কার্ডটি অধিকাংশ এটিএম বুথ-এ কার্যকর যেমনঃ-ডাচ্-বাংলা ডিবিবিএ্‌ল, প্রাইম ব্যাংক,স্টেন্ডারড চাটারড ব্যাংক, ব্রেক বেঙ্ক-এর এটিএম বুথ। অর্থাৎ যেখানে মাস্টার কার্ড এর লোগো আছে , সেখানেই উত্তোলন করতে পারবেন। (ব্রেক এ ইদানিং শুনেছি কিছু কিছু যায়গায় সমস্যা হচ্ছে।)

প্রশ্নঃ আমি কি এই কার্ডটি দিয়ে অনলাইনে ক্রয়ের অথবা খরচের কাজে ব্যবহার করতে পারবো?

উত্তরঃ হ্যা। আপনি এই কার্ডটি দিয়ে অনলাইনে ক্রয় অথবা খরচে ব্যবহার করতে পারবেন। বাড়তি কোন ফি দিতে হবে না।

প্রশ্নঃ আমি কি এই কার্ডটি দিয়ে আমার দেশের দোকান গুলোতে ক্রয়ের কাজে ব্যবহার করতে পারবো?

উত্তরঃ হ্যা। আপনি এই কার্ডটি দিয়ে যেকোনো দোকান (যেখানে মাস্টার কার্ড এর লোগো আছে) ক্রয় এর কাজে ব্যবহার করতে পারবে। বাড়তি কোন ফি দিতে হবে না। কেনার পর একটা রিসিট পাবেন। মিলিয়ে দেখুন আপনার কেনাকাটার টাকার অঙ্ক ঠিক আছে কিনা। অতপর সিগ্নেচার করে দিয়ে দিন। অনুরুপ একটা রিসিট আপনার সংরক্ষণ এর জন্ন আপনাকে দেয়া হবে।

প্রশ্নঃ অডেস্কের ডেবিট মাস্টারকার্ডের চার্জটি কি খুব বেশি নয়?

উত্তরঃ যদি আপনি সপ্তাহে মোটামুটি আয় করে থাকেন, তবে এই খরচটি আপনাকে ভাবাতে পারবে না। অন্তত, এতো ভালো সুযোগ-সুবিধা আপনি খুব নুন্যতম মুল্যে পাচ্ছেন।

প্রশ্নঃ আমি এপ্লাই করেছি কিন্তু কারড পাচ্ছি না কেন?

উত্তরঃ রেগুলার মেইল এ কার্ড আসার সময় হলো ২৫ দিন।সবোচ্চ ৩৫ দিন। সাধারনত আরো আগেই আসে। এর খরচ নেই। ফ্রী। আর খুব দ্রুত কারড আনতে চাইলে ডি এইচ এল এর মাদ্ধমে আনা জাবে।৩ থেকে ৫ দিন লাগবে। খরচ ৬০ ডলার। পারসেল টাকে ট্রেক করা যাবে।

কারড আনার জন্য কত টাকা থাকতে হবে একাউন্ট এ?

২০ ডলার এর মতো। (কিছু কম বা বেশি) অনেক সময় কার্ড এ টাকা না থাকলেও ওরা কার্ড পাঠিয়ে দেয়। এটা নির্ভর করে।

প্রস্নঃ আমি ক্লায়েন্ট হিসেবে পেমেন্ট মেথড ভেরিফাই করতে চাই পেওনিয়ার কার্ড দিয়ে। পারবো?

উত্তরঃ অনেকে শুনেছি করতে পেরেছে। কিন্তু ওডেস্ক থেকে বলা হয়, এ সম্ভব নয়। (Debit card, prepaid cards, and virtual cards are not accepted as client payment method.) Try করে দেখতে পারেন। হলে জানাবেন।

প্রশ্নঃ আমি কিভাবে কার্ড কেন্সেল করবো?

উত্তরঃ সরাসরি customer support এ মেইল করুন। আপনার কার্ড এর শেষ ৪ ডিজিট এবং নাম (যা কার্ড এ দেয়া আছে) দিয়ে। ওরা কেন্সেল করবে। বাকি টাকা এ টি এম থেকে তুলে নিতে পারবেন।

আমি কি অন্য Credit card দিয়ে আমার পেওনিয়ার কার্ড লোড করতে পারবো?

হ্যাঁ। পারবেন। যেকোনো Visa@Master card দিয়ে।

কার্ড না ব্যাবহার করলে কি হবে?

কার্ড এ যদি কোন টাকা না থাকে, কোন চার্জ প্রযোজ্য হবে না। Inactive হয়ে থাকবে।লেনদেন করলে Active হয়ে যাবে। দীর্ঘদিন লেনদেন না করলে block হয়ে যাবে এবং আপনাকে কাস্টমার সাপোর্ট এ কথা বলতে হবে।

কার্ড যদি হারিয়ে/চুরি হয়ে যায়?

সাথে সাথে call করুন ওদের কে। 1-646-224-6993 (২৪/৭ দিন খোলা)

কার্ড পাওয়ার আর কি শর্ত আছে?

আপনার বয়স ১৮ হতে হবে। (ব্যাঙ্ক একাউন্ট না থাকলেও পেতে পারেন)।

এবং কোন একটি partner site (Market Place – odesk, elance etc) থেকে অ্যাপ্লাই করতে হবে।

আমি কি অন্নান্য ফ্রিলেঞ্চ মার্কেট প্লেস গুলোতে (elance, freelancer etc) ওডেস্ক পেওনিয়ার কার্ড ব্যাবহার করে টাকা উত্তোলন করতে পারবো?

হ্যাঁ। পারবেন।

লগইন করুন

পেওনিয়ার কে পেমেন্ট মেথড হিসেবে সিলেক্ট করুন।

রেজিস্ট্রেশন পেজ এ ক্লিক করুন ঃ Already applied for a Payoneer account? (ক্লিক করুন – এটা দেখতে পাবেন, ডান দিকে উপরে।)

কার্ড নং এবং বেক্তিগত তথ্য ভেরিফাই করুন।

একটি কথা। আপনি শুধুমাত্র ইলেন্স এ করতে পারবেন না। তবে অচিরেই এই সুবিধা দেয়া হবে।

কার্ড কখন ইনেক্টিভ বা ব্লক হয়?

আপনি কিছুদিন বেব হার না করলে কার্ড টি ইনেক্টিভ হয়ে থাকবে। লেনদেন করলেই আবার একটিভ হয়ে যাবে। তবে ৬ মাস ব্যাবহার না করলে কার্ড টি ব্লক বা সাসপেন্ড হবে। তবে তার আগে পেওনিয়ার থেকে ওয়ার্নিং লেটার পাঠানো হবে আপনাকে।

এ টি এম গুলো কোথায় পাবো?

এখানে দেখুন – http://www.mastercard.com/us/personal/en/cardholderservices/atmlocations/index.html

ডলার এর রেট কত করে বাংলাদেশে?

এখানে চেক করে দেখুন – http://usd.fxexchangerate.com/bdt/

———————————————————-

আমি আমার কার্ড কিভাবে লোড করতে পারি?

২ টি উপায় আছে।

১) ক্রেডিট কার্ড দিয়ে ২) ডিরেক্ট ডেপোজিট

ক্রেডিট কার্ড দিয়ে ঃ

My Account.

Enter >Username and Password

>”Load Money” সিলেক্ট করুন “Tools” menu থেকে

e-mail address বা card number দিন

>”Continue”> “Credit Card” ট্যাব

যা জানতে চায় দিন আর বলুন কিভাবে আপনি লোড করতে চান।

>”continue”.Confirm করুন> “Save Changes” এ ক্লিক করে।

কনফারমেশন এমেইল পাবেন।২ দিনএর ভেতর লোড হয়ে যাবে।

ডিরেক্ট ডেপোজিট –Direct Deposit (ACH):

U.S. bank accounts থেকে শুধু করা যাবে আর ফি লাগবে।

৫/৭ দিনএর ভেতর লোড হয়ে যাবে।

(বাকি সবকিছুই উপরোক্ত নিয়মে)

* Fees may apply. Refer to your cardholder agreement for more information.

———————————————————————————

আমি আরেকটি পেওনিয়ার কার্ড এ কিভাবে টাকা পাঠাতে পারি?

www.payoneer.com এ যান। > My account

user name / password দিন।

> “Tools” menu সিলেক্ট করুন >”Transfer to another card”

সিকিউরিটি ডিটাইলস দিন।

লোড করার জন্য কার্ড সিলেক্ট করুন। (ইমেইল বা কার্ড নাম্বার)

টাকার এমাউন্ট দিন।

কারন উল্লেখ করুন।

কনফারমেশন ইমেইল পাবেন।

২ ঘন্টার ভেতর টাকা ট্রান্সফার হবে।

(Please note the limits for the service:

Daily limit: $1000

Monthly limit: $5000

Maximum number of transfers per month: 5)

কার্ড এক্টিভেত করার নিয়ম

তো আপনি কার্ড পেয়ে গেছেন।

 

 

কার্ড চিঠি তে লাগানো থাকে। খুলে নিন। এক্টিভেট করার জন্য PIN কিন্তু চিঠিতে নেই। যা করবেন তা হলো –

WWW.PAYONEER.COM এ যান।

এক্টিভেট ইউর কার্ড (Activate your card)- বাটন টিতে ক্লিক করুন

ইউজার নেম আর পাসওয়ার্ড দিন।

৪ ডিজিট এর নতুন পিন তৈরি করুন। ক্লিক করুন “সাবমিট”

পেওনিয়ার থেকে মেসেজ পাবেন

আপনার কার্ড এক্টিভেট হয়ে গেছে।

কিভাবে পিন বদলানো যাবে?

ক্লিক করুন – MY account

Tools Menu থেকে সিলেক্ট করুন change PIN

যা জিজ্ঞাসা করবে জানান আর নতুন পিন দিন। submit করুন।

www.payoneer.com

কার্ড এর খরচ কেমন? (বিস্তারিত)

প্রথমবার (ইমিডিয়েট লোড সহ) :

ওডেস্ক থেকে উত্তোলন (কার্ড এ টাকা ট্রান্সফার)-২ ডলার

তাৎক্ষনিক লোড – ২.৫ ডলার

কার্ড এক্টিভেশন – ৯.৯৫ ডলার

এটিএম থেকে উইথড্র – ২.১৫ ডলার (প্রতি বার)

সর্বমোট – ১৬.৬০ ডলার (তাৎক্ষনিক লোড ছাড়া ১৪.১০ ডলার )

পরের বার :

ওডেস্ক থেকে উত্তোলন -২ ডলার

তাৎক্ষনিক লোড – ২.৫ ডলার

এটিএম থেকে উত্তোলন –  ২.১৫  ডলার 

সর্বমোট – ৬.৬৫ ডলার (তাৎক্ষনিক লোড ছাড়া ৪.১৫ ডলার / ওডেস্ক থেকে উত্তোলন ফি ছাড়া ২.১৫ ডলার

(ধরুন সারা মাস কাজ করে আপনি ওডেস্ক থেকে এক বার লোড দিলেন। গেলো ২ ডলার। এখন সব টাকা কার্ড এ চলে এলো। আর ওডেস্ক এ কোন টাকা দিতে হবে না। এখন আপনার খরচ বলতে ATM থেকে উত্তোলন ফি। প্রতিবার।তাই বারে বারে লোড না দিয়ে এক সাথে টাকা তোলা টা ভালো। অবশ্য কিছু বেশি টাকা হলে ফি টা একদম ই গায়ে লাগে না)

এছাড়া :

$১২.৯৫ – Card replacement (কার্ড হারিয়ে গেলে নতুন কার্ড আনা)

$0.৯০ – এটিএম বেলেন্স চেক। (কত টাকা আছে দেখা)

$0.৯০ – এটিএম বেলেন্স ডিক্লাইন।(কার্ডে যা টাকা আছে তার চে বেশি উত্তোলন করতে গেলে)

টাকা না থাকলে উইথড্র দিতে জাবেন না। এটিএম কার্ড গিলে ফেলতে পারে।

(সব চার্জ কাটা হবে তা নয়। যেমন যদি balance check করেন তবে balance check এর জন্য যা চার্জ তা কাটা হবে।)

প্রতি উত্তোলনে সরবচ্চ তোলা যাবে ২৫০০ ডলার। আর সরবচ্চ  ২৫০০ ডলার এর কেনাকাটা করা যাবে। মোট ৫০০০ ডলার। অর্থাৎ নগদ নিয়ে পারবেন ২৫০০ ডলার, কার্ড দিয়ে কেনাকাটা করতে পারবেন ২৫০০ ডলার (অনলাইন বা সাধারন দোকান গলো থেকে)

জেনে রাখুন–

প্রতি উত্তোলন এ- ব্যাংক অনুযায়ী লিমিট। যেমন Brac Bank এ লিমিট হলো ২০০০০ হাজার টাকা। Prime Bank এ লিমিট হল ১০০০০ হাজার টাকা।

জেনে রাখুন :

১) ওডেস্ক থেকে টাকা মাস্টার কার্ড এ লোড ২ ভাবে করতে পারেন।

ক) সাধারন লোড – ফ্রী (২ দিন লাগবে)

খ) তাৎক্ষনিক লোড – ২.৫ ডলার

(বলে রাখা ভালো ওখানে আর একটি option আছে যাতে বলা আছে আগামিতে যত লোড করবেন – তা সব তাৎক্ষনিক লোড হিসেবে করতে চান কিনা? Box এ ক্লিক করলে সামনের সব লোড automatic তাৎক্ষনিক লোড হয়ে যাবে।)

(২)অডেস্ক পেওনিয়ার ডেবিট মাস্টারকার্ড সম্পর্কে বাংলাদেশে অনেক গুজব রয়েছে। এডিয়ে চলুন।

(৩) ধরুন প্রথম বার লোড দিলেন ৫০ ডলার। একাউন্ট এ দেখাবে ৪৮ ডলার। কারন একটিভেশন ফি এখন ও কাটে নি। কাটার পর থাকবে ৩৬.৫৫

———————————————————————-

__লক্ষ করুন__

সব মিলিয়ে মিনিমাম খরচ :

ধরুন আপনি ১০০ ডলার উত্তোলন করতে চান। আপনার খরচ হবে – ৬ .৫ ডলার।

 

২.৫ ডলার- উত্তোলন

৩ ডলার (১০০ ডলার এর ৩%)

এটিএম চার্জ -১ ডলার (এটা নির্ভর করে Bank এর ওপর। আরও কম বা বেশি হতে পারে )

তাই পরামর্শ হল : মাসে এক/দুই বার উত্তোলন করা। উত্তোলন করে আপনার local Bank এ জমা করে ধিরে ধিরে তুলুন।

 

বি:দ: ১০০ ডলার এর ৩% কাটা হবে শুধু মাত্র যখন আপনি ডলার আপনার দেশের কারেন্সি তে কনভার্ট করে তুলবেন। এই ৩% কাটে master card. (ওডেস্ক বা পেওনিয়ার না)

 

উত্তোলন করার আগে ওডেস্ক এ যা জমা হয়েছে – তা কার্ড এ নিয়ে আসুন ২ ডলার ওডেস্ক এ দিয়ে। উত্তোলন করার ২ দিন আগে transfer করলে ইমিডিয়েট লোড ২ ডলার – তা লাগবে না। (Normally ২ দিন লাগে) যা আগেও বলা হয়েছে।

কোন কিছু জানার থাকলে প্রশ্ন করবেন। আশা করি উত্তর পেতে দেরি হবে না।

————————————————————————

 

আরেকটি ব্যাপার :

 

বিদেশ থেকে (ওডেস্ক এর) টাকা আনার জন্য ৫ টি মাদ্ধমের ২ টি শুধু আপনি ব্যাবহার করতে পারেন বাংলাদেশ থেকে। (আর ওডেস্ক এর বাহিরে হলে পেপাল এর মত আছে অল্টার পে। যা এখন জন প্রিয়তা পাচ্ছে। ব্যাংক এশিয়ার সাথে ওদের সম্পৃক্ততা আছে।)

১। payoneer

2। Moneybooker (Skrill)

(আর paypal (www.paypal.com) বাংলাদেশে নেই তাই পারবেন না। এটা দিয়ে সবচে কম খরচে আনা যায়।)

তো payoneer ছাড়া আর একমাত্র option আপনার কাছে আছে – Money booker.

কিন্তু এতে খরচ payoneer এর চে বেশি ,ঝামেলা বেশি এবং সময় ও বেশি লাগে।

Moneybooker নিয়ে doc file আছে। দেখতে পারেন।এই যে লিঙ্ক : https://www.facebook.com/groups/odeskhelp/doc/231711423599570/

ব্যাক্তিগত ভাবে আমি payoneer ব্যাবহার করি এবং কোন ঝামেলা ছাড়া খুব সহজে উত্তোলন করতে পারছি।

————————————————————————————-

কার্ড হারিতে/চুরি হলে সাথে সাথে পেওনিয়ার এর নাম্বার এ ফোন দিয়ে জানান। ওরা ব্লক করে দিবে। (নাম্বার তাই সাথে রাখুন।(1-646-224-6993) অথবা customar support এ যোগাযোগ করুন দ্রুত (live chat- http://www.payoneer.com/contactUs.aspx)

——-এছাড়া কার্ড এবং পিন খুব ই সতর্কতার সাথে রাখুন। ———-

সুবিধাঃ

১) সারা প্রিথিবির প্রায় সব এটিএম এবং দোকান এ গ্রহন যজ্ঞ

২) পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড আছে ইউ এস ডলার এ। কনভারট করা যায় নিজের দেশের currency তে।

৩) খুব দ্রত উত্তোলন – টাকা আসভে ৫ মিনিট লাগে।

৪) নিরাপদ – খুব ই নিরাপদ, পেপাল এর মত।

৫) শিপিং – ঘরের দরজায় কার্ড দিয়ে যায় বিনামুল্যা।

৬) লোডিং – ইমেইল বা কার্ড নাম্বার দিয়ে ইজি লোড।

৭) অন্ন পেওনিয়ার কার্ড থেকে টাকা transfer করা জায়।

8) অন্নান্য Freelance Market place গুলোতে ব্যাবহার করা যাবে।

———————————————————————————————————————-

আজ এই টুকু। সময় স্বল্পতার কারনে হয়তো ভালো ভাবে করা গেলো না। ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। মতামত বা যেকোনো তথ্য, যা এড করা যেতে পারে- জানালে খুশি হবো। সাথেই থাকুন।

ধন্যবাদ।

হাসান তানভীর

অডেস্কার

বিঃদঃ (১)ডক এডিট করার জন্য অনুরোধ রইলো অনুমতি সাপেক্ষে। কোন ভুল পেলে জানানোর জন্য বিণিত অনুরোধ রইলো।

(২) অনুমতি ছাড়া এই doc অন্য কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

সহায়তা ঃ http://www.blogkori.com

ভিডিও দেখুন ঃ http://www.youtube.com/watch?v=Q7BgdGiXJXU

অডেস্ক পেওনিয়ার কেইস স্টাডি (ইংরেজি)ঃ http://www.payoneer.com/CS-oDesk.aspxপেওনিয়ার

অডেস্ক ফোরাম ঃ https://www.odesk.com/community/search/node/payoneer%20bangladesh

কথা বলুন পেওনিয়ার এ (লাইভ চ্যাট) ঃ http://www.payoneer.com/contactUs.aspx

একটি অভিজ্ঞতা (বাংলা) ঃ http://www.somewhereinblog.net/blog/hemonterghran/29377491

মাস্টার কার্ড কি?: http://en.wikipedia.org/wiki/MasterCard

By Reaz Rahman and Hassan Mahmud Tanvir in oDesk Help


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

ব্লগিং-অ্যাফিলিয়েশনে ক্যারিয়ার গড়তে চান? আগেভাগেই জেনে নিতে পারেন...
ফ্রীল্যান্সিংতো করবেন ই তার আগে এদিকে দেখুন !!!!
আয় করুন আপনার বাংলা ব্লগ বা যে কোন ভাষার সাইটে অ্যাড দেখিয়ে । ১০০% টাকা আয় করতে পারবেন এবং গুগল অ্যা...
বাঙ্গালী জাতি অলস জাতি, এ কথা যেন আমাদেরকে আর শুনতে না হয় !!!
ফেসবুক, টুইটার,G+,youtube ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট এ লাইক করে আয় করুন(PAyment Proof সহ)
ইনকাম করুন Express group site থেকে
ইনকাম করুন এলিট সাইট থেকে।পেমেন্ট প্রুফ দেখেনিন।

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

অনুপম শুভ্র

অনুপম শুভ্র

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/freelancing/0shuboo/29360

1 comment

  1. kizir007
    kizir007

    আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যজনক ব্যাপার হচ্ছে- বাংলাদেশে এখনও দেশ থেকে বাইরে টাকা পাঠানোর সহজ কোন পন্থা চালু হয়নি। ভিসা, মাস্টারকার্ড সহ কিছু পেমেন্ট সার্ভিস চালু হয়েছে, কিন্তু তাদের বাংলাদেশে কোন নির্দিষ্ট শাখা নেই, ফলে গ্রাহকরা সাপোর্ট পাচ্ছে না ঠিক মত। তাছাড়া নেটেলার, স্ক্রিল, পারফেক্ট মানি ব্যবহার করেও লেনদেন করা যাচ্ছে, কিন্তু এইসব পেমেন্ট একাউন্টে মানি লোড করা ও উত্তোলন বেশ ঝামেলার কাজ। কিছু পেমেন্ট গেটওয়ে সার্ভিস আছে যারা অনালাইলে টাকা পাঠানো ও গ্রহন করতে আপনাকে বেশ সাহায্য করবে, কিন্তু তারাও অনেক বেশি চার্জ কাটে। তাহলে বলুন সমাধান কি?

    এর সমাধান এখন চলে এসেছে বাংলাদেশে। আমার এই বিস্তারিত পোষ্টটি পড়ে দেখুন, আশা করি উপকার হবেঃ http://techtweets.com.bd/tips-tricks/kizir007/70698

মন্তব্য করুন