«

»

সফট এবং এনার্জি ড্রিংকস এর অপকারিতা।

সফট এবং এনার্জি ড্রিংকস দেহের নানা রকম ক্ষতি সাধন করে থাকে। এবার থেকে সফট এবং এনার্জি ড্রিংকস খেতে একটু সাবধানে খাবেন, কারনঃ

কারণ আপনি মোটা হতে চান 

আপনি যদি মোটা হতে চান তাহলে সফট এবং এনার্জি ড্রিংকস আপনারই জন্য। যদিও মোটা হওয়া মানে শুধু দেখতে খারাপ বা শারীরিক অস্বস্তি কিনতু এটা কোনো ব্যাপারই নয়। ওজন বাড়লে আপনি খুব অনায়াসে যে ওসাধারণ জিনিস গুলার সাথে পরিচিত হবেন তা হলো টাইপ টু ডায়াবেটিস, হাই ব্লাড প্রেশার,স্ট্রোক, হার্ট এটাক, ক্যান্সার, গলব্লাডারে পাথর, আর্থ্রাইটিস।

মোটা হওয়ার সঙ্গে সফট ড্রিংকস-এর একটা সরাসরি যোগাযোগ আছে। বোস্টনের শিশু হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগ এবং হার্ভার্ড স্কুল একসাথে গবেষণা করে যা বের করেছে তাহলো, একটি শিশু যদি প্রতিদিন একটা করে বাড়তি সফট ড্রিংকস খায় তাহলে তার ওজন বাড়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায় ৬০% এক বোতল বা এক ক্যান সফট ড্রিংকসে ক্যালরির পরিমাণ হলো ১৬০ যা ১০ চামচ চিনির সমান। এ পরিমাণ ক্যালরি ঝরাতে সপ্তাহে আপনাকে ভারী ব্যায়াম করতে হবে সাড়ে ৪ ঘণ্টারও বেশি।:P কিন্তু আপনি কি তা করেন? তাহলেই বুঝুন পরিণতি!

কারণ আপনি আপনার দাঁত হলুদ বানাতে চান 

ধরুন, আপনি আপনার বন্ধুদের একটা জাদু দেখাতে চান। আপনার ধবধবে সাদা মুক্তোর মতো দাঁতগুলোকে আপনি ১ ঘণ্টার মধ্যে স্থায়ীভাবে হলুদ করে ফেলবেন। কিছুই না, এক ঢোক কোলা মুখে নিয়ে ১ ঘণ্টা ধরে রেখে দিন। ব্যস, এনামেল ক্ষয়ে দাঁতগুলো হলুদ হয়ে যাবে। সফট ড্রিংকসের ঝাঁঝালো স্বাদ বাড়ানোর জন্যে এতে ফসফরিক এসিড ব্যবহার করা হয়। এ এসিড এত শক্তিশালী যে, একটা নখ এর মধ্যে ডুবিয়ে রাখলে ৪ দিন পর আর আপনি নখটাকে খুঁজে পাবেন না। তাছাড়া সফট ড্রিংকসে যে চিনি ব্যবহার করা হয়, ব্যাকটেরিয়ার প্রভাবে এটাও এসিড তৈরি করে।

কারণ আপনি ভঙ্গুর হাড় চান 

ফসফরিক এসিডের আরেকটি কাজ হলো হাড়ের ক্যালসিয়ামকে ক্ষয় করা। ১৯৯৪ সালে টিনএজ মেয়েদের ওপর চালানো হার্ভার্ডের এক গবেষণায় দেখা যায়, যে মেয়েরা সফট ড্রিংকস পান করে অন্যদের তুলনায় তাদের হাড়ভাঙার প্রবণতা ৫ গুণ বেশি। পরবর্তীকালে অস্টিওপরোসিস নামক হাড়ের ক্ষয়জনিত একটি রোগ এদের হতে পারে। এ রোগে হাড়ের ঘনত্ব কমে এবং গঠন দুর্বল হয়ে যায়। ফলে হাড় সহজে ভেঙে যায়। সাধারণত বয়স্ক মহিলাদের এ রোগটি বেশি দেখা দেয় আর আশঙ্কার কথা হলো, ভাঙা হাড় আর সহজে সেরে ওঠে না। ২,৫০০ প্রাপ্তবয়স্ক মহিলার ওপর এ ধরনের আরেকটি গবেষণা চালিয়ে দেখা গেছে, এমনকি যারা নিয়মিত দুধ বা অন্যান্য ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করেন তারাও কোলাজাতীয় ড্রিংকসের ক্ষতিকর এ প্রভাব থেকে মুক্ত থাকেন নি।

এত যখন উপকার তখন খাবেন না কেন 😛
দেখি কে কে খাইতে চান এমন উপকারই জিনিস হাত তুলেন।।


এ সম্পর্কিত আরো কিছু টুইট:

ইন্টারনেট স্পিডআপ করার দুটি টিপস্ + একটি সফট
অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারে সচেষ্ট হই! (সবার পড়া উচিত)
কলা কথা . কলার পুস্টিগুন
Photoshop এ তৈরী করুন ওয়েবসাইট বা মাল্টিমিডিয়া আইকন
ভালবসার রঙে রাঙিয়ে থাক আপনার কম্পিউটার ( একটি অসাধারন সফটওয়্যার )
আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটকে সুরক্ষা দিতে কিছু টিপস…………
সব ধরনের ইংলিশ,কলকাতা বাংলা ও হিন্দি মুভি

মন্তব্য দিনঃ

comments

About the author

অরন্য নিলয়

নীল আকাশ ছুঁয়ে দিতে ইচ্ছে করে। কিন্তু পড়া লেখা করতে ইচ্ছে করে না :(

Permanent link to this article: http://techtweets.com.bd/discussion/aronno-niloy/15290

6 comments

Skip to comment form

  1. সায়েম

    ওরে বাপরে! জানতামই না!!

  2. s0ur0v

    না খেয়েও থাকা কষ্ট 😐

  3. LuckyFM

    মাঝে ১ বছর বেশ খেয়েছিলাম
    এরপর ছেড়েছি বছর দুয়েক 😛
    এখন বদ অভ্যাসের একটি আছে তা হল কফি খাওয়া(পজিটিভ আবার নেগেটিভ ও)
    তাই সবাইকে আহবান করছি এক লিটার ড্রিঙ্কস খাবার চেয়ে এক গ্লাস পানি খান শরীরের কাজে দিবে

  4. MNUWORLD

    ফ্রেন্ডদের সাথে থাকলে অনেক খাওয়া হয়। এখন তাহলে কম খাওয়া হবে!!!

  5. Nazrul
    Nazrul

    বাঁচ্চাদের বুঝানো মুষ্কিল ।

মন্তব্য করুন